বঙ্গবন্ধু দ্বীপ ভ্রমণ

Published : অক্টোবর ১, ২০১৭ | 1196 Views

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

বঙ্গবন্ধু দ্বীপ ভ্রমণ: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

১৯৯২ সালে মালেক ফরাজি নামে স্থানীয় “মৎস শিকারি মালেক ফরাজি বঙ্গবন্ধুর নামে এই দ্বীপের নামকরণ করেন। মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে দ্বীপটির আয়তন ৭ দশমিক ৮৪ বর্গকিলোমিটার এবং সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২ মিটার উচ্চে অবস্থিত। দ্বীপটির চারিদিকে গড়ে উঠেছে প্রায় ৯ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং ৫০০ মিটার প্রশস্ত সি বিচ।

ঢাকা থেকে ৩৯ জন, দিনাজপুর থেকে ২ জন এবং ক্রুসহ ৫৪ জনের একটি দল গত ৩০ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু দ্বীপ সফর করে। অফিসিয়াল ইভেন্ট খুলে বঙ্গবন্ধু দ্বীপ সফরের এটাই প্রথম কোনো ট্রিপ। এই দলে কয়েকজন নারী শিশুও ছিলো। এই ভ্রমনের আইডিয়া ছিলো বাকোর সেক্রেটারী জেনারেল তৌহিদ হোসেন এর। পরিকল্পনা: জাহাঙ্গীর আলম শোভন, যিনি পায়ে হেঁটে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ ভ্রমণ করেন। ব্যবস্থাপনা: শহীদুল ইসলাম সাগর, যিনি বগুড়া ট্যুরিস্ট ক্লাবের সভাপতি।

সহযোগিতায়: হুমায়ন কবীর ও দীপু সিদ্দিকী। ট্যুর গাইড: মিথুন গাইডভ। যেসব সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান এই সফরে যোগ দিয়েছে সেগুলো হলো। হলিডে ট্রাভেলস, বগুড়া ট্যুরিস্ট ক্লাব, বেড়াবো ডট কম, চলবে ডট কম, নিসা ট্যুরিজম, দেশদেখা, এফএনএফ ট্যুরিজম, ফিফো টেক, ট্যুর ডট কম ডট বিডি, রুট ব্লাড ব্যাংক ও ক্লাউড আইল্যান্ড ট্যুরিস্ট ক্লাব।

মিডিয়া পার্টনার ছিলো- দি বাংলাদেশ ট্রাভেল, ট্রাভেল টিউন, স্বপ্নবাজ

যাত্রা শুরু: ঢাকা থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর। বঙ্গবন্ধু দ্বীপ পদার্পণ: ৩০ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায়। ফেরা: বিকাল ৩টায়

দ্বীপের আকর্ষণ: সুন্দর সৈকত ও সবুজ বনানী। ভ্রমণের বিশেষ দিক: জাহাঙ্গীর আলম শোভন এর পক্ষ থেকে সবাই মিলে বটগাছের ছারা রোপন।

বঙ্গবন্ধু দ্বীপ

 

তথ্য কণিকা

২০১৭ সালের প্রথম দিকে অধ্যাপক শহীদুল ইসলামের নেতৃত্বে ২৮ সদস্যের একটি অনুসন্ধানী দল ১১ থেকে ১৬ ফেব্রুয়ারি বঙ্গোপসাগরে জেগে ওঠা বঙ্গবন্ধু দ্বীপে সর্বপ্রথম একটি বিজ্ঞান ভিত্তিক অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা করে।গবেষণা দলের অন্য সদস্যদের মধ্যে প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নিয়ামুল নাসের, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আহমেদ কামরুজ্জামান মজুমদার এবং গবেষণার আর্থিক সহযোগী অ্যাম্বিয়ান্স বাংলাদেশের ।

গত বছর এডভেঞ্চার ট্যুুরিস্ট তমজিদ মল্লিকের নেতৃত্বে এডভেঞ্চার ট্যুরিস্টদের ৫ জনের একটি দল বঙ্গবন্ধু দ্বীপ সফর করে। এভাবে বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্ন সময়ে এডভেঞ্ছার ট্যুরিস্টদের পদধুলি পড়েছে দ্বীপে। তবে স্থানীয় জেলেরা সব সময় দ্বীপে আসা যাওয়া করে।

কিন্তু মূলত সবাই বঙ্গবন্ধু দ্বীপের কথা জানতে পারে গত ফ্রেব্রুয়ারীতে দ্বীপে গবেষনা করে আসা বিশ্ববিদ্যালয় টিমের সংবাদ সম্মেলনের পর। আর গত ৩০ সেপ্টেম্বর ট্যুর ট্রিপের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু দ্বীপের দরজা খুলে গেল ভ্রমণপিয়াসীদের জন্য।

বঙ্গবন্ধু দ্বীপ সৈকত

Published : অক্টোবর ১, ২০১৭ | 1196 Views

  • img1

  • অক্টোবর ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « সেপ্টেম্বর   নভেম্বর »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • Helpline

    +880 1709962798