মানসিকভাবে ভালো থাকতে

Published : আগস্ট ২৫, ২০১৭ | 753 Views

মানসিকভাবে ভালো থাকতে

 

১. দুশ্চিন্তামুক্ত থাকুন

জীবনের ব্যাপারে সতর্ক থাকলে টেনশন কিংবা কোনো মাথাব্যথার সম্ভাবনা কমিয়ে ফেলা যায়। শুধু শুধু টেনশন না করে সমাধানের পথ খুজুন। ভাবুন যে, প্রতিটি সমস্যারই একটি সমাধান আছে অথবা একটি করনীয় আছে। বিপদের ধৈর্যধারণ করে ঠান্ডা মাথায় সিদ্ধান্ত নিন। আপনার দুশ্চিন্তামুক্ত থাকা খুব জরুরী।

 

 ২. ঔষধ ছাড়া মাথাব্যথার সমাধান খুজুন

বরফসহ একটি কাপড়ের পুঁটলি বানিয়ে মাথায় চাপ দেয়া। মাথাব্যথার যত প্রথম ভাগে এই কাজ করা তত কম মাথাব্যথা হবে। সাধারণত ব্যাথার জায়গাগুলোতে চেপে ধরুন। তাছাড়া ঘাড়ের পেছনে, কপালে, চোয়ালে, মাথার দুই পাথে দিতে হবে।  আকুপাংচার প্রক্রিয়ায় ব্যথার বিরুদ্ধে শরীরের স্বাভাবিক প্রকিয়ায় বাড়াতে সাহায্য করবে।  ধুমপানের সমস্যা থাকলে তা পরিহার করুন। তবে নিজে ধুমপান পরিহার করে ধুমপায়ী বন্ধুদের আড্ডায় বসে থেকে লাভ নেই।  ঝাঁঝ, দূর্ঘন্ধ, অতি আলো, বেশী শব্দ এসব থেকে দূরে থাকুন।  কড়া পারফিউম, সুগন্ধি তেল এসবও অনেকের মাথাব্যথা বাড়িয়ে দিতে দিতে পারে।  পরিষ্কার বিছানায় নিরবিচ্ছিন্ন ঘুম হতে পারে মাথাব্যথার ওষধ।

 

৩. ভয়কে জয় করুন

মনের মাঝে চালে আসা ভয়কে যখন কোনোভাবেই তাড়ানো যাচ্ছে না তখন তাকে স্বাগত জানান, পর্যবেক্ষণকারীর ভূমিকায় তাকে দেখুন, নানা উপসর্গ দেখা দিচ্ছে কিন্তু অল্প সময় ব্যবধানে তা ক্রমশ স্বাবাবিক হয়ে আসছে। উদ্বেগ আতঙ্কের ক্ষমতা সীমিত, আর পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থাপনা অবলম্বন করে অরো দুর্বল করে দেয়। ব্যাপারটা অনেকটা পুলিশের নীরব পর্যবেক্ষণের ভূমিকা নেয়ার মতো। চোর তখন প্রাণ বাঁচাতে চুপিসারে সরে যায়।

৪. পজিটিভ অ্যাটিটিউড গড়ে তুলুন
আপনার শরীর কি রকম থাকবে তার অনেকটাই নির্ভর করে আপনার দৃষ্টিভঙ্গি বা অ্যাটিটিউডের ওপর। আপনি যদি মনে করতে থাকেন যে আপনি ভালো নেই তা হলে সত্যিই আপনি ভালো নেই। আর যদি মনে করতে থাকেন যে আপনি চমৎকার আছেন তা হলে বুঝতে হবে আপনার শরীর স্বাস্থ্য বেশ আছে। অন্যভাবে বলতে গেলে আপনার মন অনেকাংশে ঠিক করে আপনার শরীর কেমন থাকবে সেই ব্যাপারটা। গবেষণায় দেখা গেছে শুধুমাত্র মনের জোরেই অনেক রোগ অসুখ থেকে বিদ্যি সেরে ওঠা যায়। অতএব পজিটিভ অ্যাটিটিউড গড়ে তুলুন।

৫. ঘুম

প্রতিদিন ৮ ঘণ্টা ঘুমোন। শরীর ঠিকমতো বিশ্রাম পেলে তবেই হজম ভাল হবে, বাওয়েল পরিষ্কার থাকবে এবং ত্বক উজ্জ্বল লাগবে। ঘুম কম হলেই আই পকেট তৈরি হবে, মুখে নানা রকম র‌্যাশ বেরবে। তখন সেগুলি ঢাকতে মেকআপ করতে হবে।

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

Published : আগস্ট ২৫, ২০১৭ | 753 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798