হানিমুনকে আনন্দময় করবেন যেভাবে

Published : জুলাই ৩০, ২০১৭ | 1187 Views

হানিমুনকে আনন্দময় করবেন যেভাবে

 

 হানিমুন বা মধুচন্দ্রিমা জীবনের এক মধুর ও গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতি। তাই এই স্মৃতি যেন পুরিপূর্ণ আনন্দময় হয়। সেদিকে খেয়াল করুন।

১। দুটি মনের একটি আশা
দুজনে মিলেই করুন হানিমুন প্লান। কোনও প্রভাব নয়।  দুজনে মিলে ঠিক করুন। কোন জায়গা বাছবেন মধুচন্দ্রিমা ‌যাওয়ার জন্য। ‌ অপছন্দকে জোর করে পছন্দ করানোর জন্য ‌যুক্তি খাড়া না করাই শ্রেয়। একে অপরেরপছন্দকে গুরুত্ব দিন।

২। দুজন দুজনার কত যে আপন
অফিসের চাপ বা ব্যবসায়িক চাপ, ‌যাই থাক না কেন, মনে রাখবেন, এমন কোনও একাধিক স্পট বাছবেন না ‌যা আপনার সময় নষ্ট করে। একটা জায়গা থেকে আর এক জায়গায় পৌঁছতেই সময় চলে ‌যায়। তাই এমন জায়গা বাছুন ‌যেখানে অন্তত দুটো দিন কাটানো ‌যায়, এবং এক ঘেঁয়েমি না আসে। এবং একান্তে কিছু সময় কাটানো যায়। দৌড় ঝাপ করে অনেক জায়গা ঘুরে দেখার নাম হানিমুন নয়।

৩। আমার এ গানখানি যদি ভালো লাগে- কোনোদিন ভুলে যেওনা
ভ্রমণে ‌যাওয়ার আগে, সময় নিয়ে ভাবুন, পরিচিতদের সাহায্য নিন, কোনও প্যাকেজ ট্যুরে গেলে বুঝে দেখুন দুজনের জন্য সেটা কতটা আনন্দদায়ক হবে? আর জায়গা সম্পর্কে, সেখানকার পরিবেশ ও নিরাপত্তা সম্পর্কে জেনে তারপর ঠিক করুন। খেয়াল রাখুন হানিমুন সারাজীবনের স্মৃতি হতে চলেছে তাই একে গুরুত্ব দিন।

 

৪। তোমাকে ভালোবেসে নিজেকেও বেসেছি
অন্যরা ‌যেমন বাঁধা ছকে ‌যায়, সেই বাঁধা ছকের বাইরে হাঁটুন। সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিন আপনার পছন্দ এবং আপনার জীবনসঙ্গীর পছন্দকে। সমতা বজায় রেখে এগিয়ে ‌যান। ‌যদি মনে হয় দুজনেরই অ্যাডভেঞ্চার ট্যুর পছন্দ বা জঙ্গল সাফারি, তাই নিয়ে চলুন। তবে কোনো কোলাহল পূর্ণ শহরের চেয়ে প্রাকৃতিক শোভামন্ডিত স্থানকে গুরুত্ব দিন। সাধারণত লোকেরা সমুদ্র বা দ্বীপকেই বেশী পছন্দ করে হানিমুনের জন্য। তারপরেই আসে বন বা পাহাড়।
৫। যতটা সময় তুমি থাকো পাশে 
মধুচন্দ্রিমা  আপনার অফিস ট্যুর বা ব্যবসায়িক ট্যুর এক নয়।  মধুচন্দ্রিমা ভ্রমণ হচ্ছে এমন অভিজ্ঞতা ‌যা আপনার কাছে অদ্বিতীয় এবং শ্রেষ্ঠ। তাই তার এক মুহূর্ত অশান্তি, ঝগড়ার , মনোমালিন্যে নষ্ট করা বুদ্ধিমানের কাজ নয়। প্রয়োজন হলে এমন কিছু খাওয়ার প্ল্যান করুন ‌যা নতুন। এমন কিছু সংগ্রহ করার চেষ্টা করুন। ‌যেটা সারাজীবন থাকবে। এমন কোনও কাজ করবেন না, ‌যেটাতে একে অপরকে অপ্রস্তুতে ফেলে বা বিরক্তিকর পরিস্থিতিতে ফেলে দেয়।

এই কথাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে নিজের আইনি নাম বাদ দিয়ে কোনও কিছু করবেন না। আইনি কাগজপত্র সবসময় সঙ্গে রাখবেন। জাতীয় পরিচয়পত্র, মোবাইল, ব্যালেন্স টাকা পয়সা, কাছের লোকদের ফোন নাম্বার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সাথে রাখুন। বিয়ের একটা কাবিন নামাও সাথে রাখতে পারেন। বলা যায়না কখন কোন বিপদে কাজে লেগে যায়।

’আপনার সচেতনতা আর সতর্কতারা ফারাকে মধুচন্দ্রিমার আনন্দের মাঝেও ফারাক দেখা দিতে পারে।

 

 

Published : জুলাই ৩০, ২০১৭ | 1187 Views

  • img1

  • জুলাই ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « জুন   আগষ্ট »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • Helpline

    +880 1709962798