কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা হিরাম কক্স

Published : জুলাই ১৬, ২০১৭ | 1640 Views

ক্যাক্যাপ্টেন হিরাম কক্স (১৭৬০-১৭৯৯)

কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা হিরাম কক্স

প্রাচীন কালে কক্সবাজারের নাম ছিল বাকোলি। আবার মধ্য সপ্তদশ শতকে জায়গাটির নাম হয় পেঙ্গোয়া। রাখাইন ভাষায় যার মানে হলুদ ফুল। বর্মার রাজা মনওয়াইং ১৭৪৮ খৃষ্টাব্দে কক্সবাজার আক্রমণ সেখানকার আরাকানি নৃপতি থামাদাকে হত্যা করে জায়গাটি দখল করেন। ফলে স্থানীয় আরাকানিরা পালিয়ে গিয়ে আশ্রয় নেয় পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং পটুয়াখালিতে।

১৭৫৭ থেকে ১৭৬৫-তে ওয়ারেন হেষ্টিংস ইংরেজদের ইষ্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানীর সুপারেন্টেন্ডেন্ট থাকাকালে লবণ চাষের প্রতি আগ্রহী হয়ে ব্রিটিশ বেনিয়াদের বিনিয়োগ শুরু হয় লবণ সংগ্রহে। গড়ে তোলে লবণ ব্যবসার বণিক সমিতি। কক্সবাজারে নিজেদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি চাষীদের মাঝে জমি বিতরণের এক উদারনীতি পদক্ষেপ নেয়। এর ফলে চট্টগ্রাম ও আরাকানের বিভিন্ন অঞ্চল হতে মানুষ এই এলাকায় আসতে থাকে। বার্মা রাজ বোধাপায়া (১৭৮২-১৮১৯) ১৭৮৪ সালে আরাকান দখল করে নেন।  প্রায় ১৩ হাজার আরাকানি বার্মারাজের হাত থেকে বাঁচার জন্য ১৭৯৯ সালে কক্সবাজার থেকে পালিয়ে যায়। তখনকার ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সরকার ক্যাপ্টেন হিরাম কক্স নামে এক সেনাদক্ষকে সুপারিন্টেন্ডেন্ট নিযুক্ত করে তাঁকে ঘর ছাড়া আরাকানিদের পুনর্বাসনের দায়িত্ব দেন।

প্রতি পরিবারকে ২.৪ একর জমি এবং ছয় মাসের খাদ্যসামগ্রি প্রদান করা হয়েছিল। এ সময় ক্যাপ্টেন হিরাম কক্স রাখাইন অধ্যুষিত এলাকায় একটি বাজার প্রতিষ্ঠা করেন। যা কক্স সাহেবের বাজার পরিচিত হয় স্থানীয়দের মাঝে। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় তার অবদানের জন্য কক্স-বাজার নামক একটি বাজার প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই কক্স-বাজার থেকেই কক্সবাজার জেলার নামের উৎপত্তি।

হিরাম কক্স। (১৭৬০ – ১৭৯৯) যিনি কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা এবং তার নাম অনুসারে কক্সবাজারের নামকরণ করা হয়। বেশীরভাগ লেখায় তাকে সেনা কর্মকর্তা বলা হলেও আসলে তিনি ছিলেন জাহাজের ক্যাপ্টেন। ভালো এডমিনেস্ট্রশন কোয়ালিটি এবং কাজ করার আগ্রহ থাকায় তাকে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী জন প্রশাসনে নিয়োগ দেয়। যেহেতু তখনো ব্রিটিশ সরকারের হাতে ভারতবর্ষের কলকাঠি যায়নি বরং ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর শাসন শোষন সরকারী নির্দেশে বার্মারাজের নির্যাতনে পালিয়ে আসা আরাকান উদ্ধাস্তুদের জন্য যিনি পূর্নবাসনের ব্যবস্থা করেছেন এবং বাজার প্রতিষ্ঠা করেছেন। এবং সে বছরই সম্ভবত ম্যালেরিয়া আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান। মাত্র 39 বছর বয়সে।

সম্প্রতি একটি বইতে তার জীবনী প্রকাশিত হয়েছে। এতে ড. মোহাম্মদ আমীন যে হিরাম কক্স এর ছবি ব্যবহার করেছেন তিনি আসলে একজন আমেরিকান ব্যবসায়ী। Benjamin Hiram Cox, Birth: Mar. 16, 1851, Cincinnati, Hamilton County Ohio, USA. Death: Apr. 15, 1909, Cincinnati, Hamilton County, Ohio, USA. আবার একটি বার্মিজ ব্লগ যেখানে হিরাম কক্স ও কক্সবাজার সম্পর্কে লেখা রয়েছে সেখানে ডানের সাদাকালো ছবিটা ব্যবহার করা হয়েছে।

গুগল ইমেজে সার্চ দিয়ে দেখা গেছে এটাও হিরাম কক্সের নয়। ছবির ব্যক্তিটি হলেন- Charles B” Maus, Birth: Dec. 3, 1823 , Michelstadt, Odenwaldkreis Hessen, Germany. Death: Aug. 6, 1907 Jefferson City Cole County , Missouri, USA. তার পাশেই আরেকজন হিরাম কক্স এর ছবি রয়েছে (দেখুন) এর সাথে তার পাশের জনের চেহারার মিল থাকলেও ইনিও সে হিরাম কক্স নন, যিনি কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা। এনার পরিচয়: Hiram Cox Birth: Sep., 1816, Pennsylvania, USA. Death: Apr. 1, 1895, Mahaska County Iowa, USA. সূত্র: www.findagrave.com/ (এটি সম্ভবত কবরস্থান বা মৃত ব্যক্তিদের পরিচয় সম্পর্কিত কোনো সাইট)

আপনি যদি হিরাম কক্স বাংলায় বা ইংরেজীতে Hiram Cox লিখে গুগলে সার্চ দেন। তাহলে নিচের সারির ছবিগুলো দেখায়। কিন্তু ভিজিট করলে এবং যাচাই করলে বোঝা যাবে এগুলো সে হিরাম কক্সের ছবি নয়। কিন্তু ডানপাশে হাতে আকা যে স্কেচ রয়েছে। এবং এটি একটি যে জার্নাল বা বইয়ের প্রচ্ছদ। নাম-Journal of A Residence in the Burmhan Empire, and More Particularly at the Court of Amarapoorah এই ছবিটি হিরাম কক্স এর কিনা তা প্রচ্ছদ দেখে বোঝা যাবেনা।

সেটা বিষয়ের সাথে সম্পর্কিতও হতে পারে। বইটি হিরাম কক্স (১৭৬০-১৭৯৯) এর লেখা। এই বইয়ের আলোচনায় হিরাম কক্স এর নাম ও কক্সবাজারের কথা রয়েছে। বইটি সে সম্পর্কিত বটে: লিংক-http://bangladeshunlocked.blogspot.com/…/captain-hiram-cox-…, বইটি সম্পর্কে বলা আছে- This Elibron Classics title is a reprint of the original edition published by John Warren; G. and W. B. Whittaker in London, 1821. This book contains color illustrations.


তাছাড়া যেহেতু আলোকচিত্র ধারনের ক্যামেরা আবিষ্কার হয় ১৮২৬ সালে আর সাদাকালো ফটোগ্রাফি ক্যামেরা বাজারজাত করা শুরু হয়েছে ১৮৪০ সালে তাই ১৭৯৯ সালে মৃত্যুবরণকারী কোনো ব্যক্তির আলোকচিত্র ধারণ করা সম্ভব নয়। বড়োজোর তাদের স্কেচ থাকতে পারে। ড. মোহাম্মদ আমীন এর ‘‘ক্যাপ্টেন হিরাম কক্স’’ বইয়ের প্রচ্ছদে সাদাকালো আলোকচিত্র ব্যবহার করা হয়েছে। সেদিক থেকেও কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা হিরাম কক্সের আলোকচিত্র থাকতে পারে না। অথচ সেটাই রয়েছে বাংলা ভাষায় লেখা ‘‘ক্যাপ্টেন হিরাম কক্স বইতে’’

যদিও যে হিরাম কক্সের নামের কক্সবাজার, সেই কক্সের কোন ভাষ্কর্য বা স্মৃতি জনসমুক্ষে নেই যা দেখেই কক্সবাজারের ইতিহাস মানসপটে ভেসে উঠতো। এরপর পর্তুগীজ ও ব্রিটিশ শাসনের মধ্যে ১৮৫৪ সালে কক্সবাজার শহর স্থাপিত হয়। ১৮৫৭ সালের ভারতের সিপাহী বিদ্রোহ ব্যর্থ হওয়ার পর ব্রিটিশরা তাদের সেনাঘাটির শহর কক্সবাজারকে ১৮৭৯ সালে মহকুমা ঘোষণা করেন।

তথ্য সংকলন: জাহাঙ্গীর আলম শোভন

Published : জুলাই ১৬, ২০১৭ | 1640 Views

  • img1

  • জুলাই ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « জুন   আগষ্ট »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • Helpline

    +880 1709962798