আমাদের ঈদ সংস্কৃতি

Published : জুন ২৫, ২০১৭ | 1227 Views

আমাদের ঈদ সংস্কৃতি
জাহঙ্গীর আলম শোভন

ইসলামের ইতিহাসে ঈদ প্রচলন হওয়ার পেছনে একটি নতিদীর্ঘ ইতিহাস বা ঘটনা আছে। ইসলাম ধর্মের রসূল মুহাম্মদ (স.) এর সাথী বা সহচর আনাস (রা.) কথিত সুনাসে আবু দাউদের একটি হাদীসে বলা আছে ‘‘মদীনায় হিজরতের পর রসূল (স.) দেখতে পান মদীনার অধিবাসীরা দ্ুিদন আমোদ প্রমোদ করে কাটায় এর একটি ছিলো ‘‘মাহরাজান’’ অন্যটি ‘‘নওরোজ’’

তিনি তাদের জিজ্ঞেস করলেন, তোমরা আজ কি উদ্দেশ্যে আমোদ প্রমোদ করছো? উত্তরে তারা জানালো আমরা জাহেলিয়াতের যুগে (ইসলাম পূর্ব যুগে) এই ২ দিবস আমোদ ফুর্তি করতাম। তখন নবী (স.) বললেন ‘‘আল্লাহ তোমাদের এই দুই দিনের পরিবর্তে উত্তম ২টি দিন দান করেছেন। এর একটি ঈদ উল ফিতর আর অন্যটি ঈদ উল আযহা।’’ ঈদ আরবি শব্দ এর দুটি অর্থ হয়, একটি খুশি বা আনন্দ। অন্যটি হলো বার বার ফিরে আসা। দুটি অর্থই ঈদের সাথে প্রাসঙ্গিক।

এসবের মাঝেÑ বাঙালী সংস্কৃতির দ্বিমাত্রিক যে বৈশিষ্ট্যের কথা বলা হয়েছে তা বিপরীত হয়েছে এ কারণে সেখানে কোনটির স্থানে কোনটি স্থাপিত হয়নি অথবা কোনটির পরিবর্তে কোনটি আসেনি। বরং প্রতিটি সংস্কৃতি আপন গতিতে বিকশিত হয়েছে। স্থান কাল ও লোকগোষ্ঠির প্রেক্ষিতে হয়তো কোনোটা কম কোনোটা বেশী আলো ছড়িয়েছে।

ঈদের আনন্দ পরিবার রাষ্ট্র বা সমাজকে এমন ভাবে আচ্ছন্ন করে কয়েকটাদিন সকলেই আমোদে মেতে থাকে। এমনকি ঈদ চলে গেলেও ঈদের রেশ যেতে চায়না। নতুন জামা, বেড়ানো, অথবা পূর্ণমিলনী সবই অভাবনীয় পুলক জাগায়। ঘরে, রাস্তায়, অফিসে সর্বত্র রঙের ছোপটা বেশ ভালোবাবেই লাগে। বেশ কয়েকদিন আগে থেকে কেনাকাটা, ঈদে ঘরে ফেরা, রাজধানী, দেশের  অন্যন্য শহর, গাঁয়ের ঈদগা সবই যেন এক উৎসবের সঙ্গী।

শুধুযে শ্রেণী পেশা তাও না ভিন্ন ধর্মের লোকদেরও ঈদের আনন্দ আমন্ত্রন করে পুরো জাতি এমন ভাবে ঈদ কাটায় এর ছোঁয়া লাগে বিদেশী নাগরিক এমনকি নাস্তিক বা ধর্মহীনদের গায়েও। দুই ঈদের যে ব্যবসায়িক কার্যক্রম চলে তা জাতির অর্থনীতিতে বিরাট প্রভাব ফেলে।

ঈদ মেলা, সেমাই-পায়েস নানা উপাদানের সাথ যুক্ত হয়েছে আধুনিক নানা অনুসঙ্গ। পত্রিকার ঈদসংখ্যা, টিভির ঈদ আয়োজন, সমিতির ঈদ পূর্ণমিলন, ভ্রমনের রুটিন, পার্কের ঈদ রাইড, গানের ঈদ কনসার্ট আরো কতকি!

ঈদ মানে ঈদগায়ে ঈদের জামাত সেটাই কেবল ইসলামী এবং মুসলমানের রয়ে গেছে। এদের অন্য অনুসঙ্গ ও নতুন পরিসঙ্গগুলোর হয়েছে সকলের এবং ধর্মীয় চেতনাবিহীন। এসব বেশীর ভাগ অনুষ্ঠানের সাথে ঈদের কোনো সম্পর্ক নেই তবে সম্পর্ক আছে ঈদের আনন্দের। আনন্দ দোষের নয়। কিন্তু ঈদের আনন্দ করতে গিয়ে ঈদকে ভুলে যাওয়া কাম্য নয়। বিশেষ করে ঈদের শিক্ষাকে।
আজ ২১ ফেব্রুয়ারী, ১৬ ডিসেম্বর, ২৬ মার্চ এর পটভূমি জানতে হবে তা না হলে এসব দিবস নেহায়েত পালন করার মাঝে কোনো গৌরব থাকবেনা। তেমনি ঈদের শিক্ষা, ইতিহাস ও পটভূমিও আমাদের জানা দরকার। অথচ ঈদের পটভূমি ও ঈদের উদ্দেশ্য জানেনা সাধারণ মানুষ।

ঈদের প্রেক্ষাপট ও ঈদের শিক্ষা এবং ধনী গরিবের মেলবন্ধনের যে শিক্ষা বার্তা ঈদ আমাদের মাঝে দিয়ে যায় ঈদের আনন্দের পাশাপাশি, তা যদি আমরা ঈদের বঝতে পারতাম এবং আনন্দের সাথে ঈদের বার্তাটা এবং শিক্ষাটাও নিতে পারতাম। তবেইনা ঈদের স্বার্থকতা। এবং আমাদের জাতীয় জীবনে ঈদের সূদুর প্রসারী প্রভাব পড়তো, যদি আমরা বুঝতে পারতাম। আর সমাজটাও ঈদের প্রকৃত রঙে রঙিন হয়ে আরো সুন্দর হয়ে উঠতো।

ছবি: বিবিসি

Published : জুন ২৫, ২০১৭ | 1227 Views

  • img1

  • জুন ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মে   জুলাই »
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • Helpline

    +880 1709962798