রহস্যময় আঙুলের ছাপ

Published : জুন ৮, ২০১৭ | 1960 Views

আঙ্গুলের ছাপের রহস্য
এই যে আমাদের হাতে আঙ্গুলগুলো, এর উপর আছে সুন্দর সুন্দর রেখা। হাতে কালি লাগিয়ে কাগজে ছাপ দিলেই রেখাগেুলো সুন্দরভাবে ফুটে উঠবে। তবে মজার ব্যাপার, এই যে আঙ্গুলের সুন্দর ছাপ, এই ছাপ কিন্তু কারো সাথে কারো মিল নেই। প্রত্যেকের আঙ্গুলের ছাপ আলাদা। ছাপের রেখার বিন্যাগুলো পৃথক পৃথকভাবে সাজানো। পৃথিবীতে কোনো এক মানুষের হাতের আঙ্গুলের ছাপের সাথে আরেক জনের আঙ্গুলের ছাপের মিল নেই। এটা জীব জগতের একটি বিরাট বিস্ময়।
আজ থেকে দুই হাজার বছর আগে চীনারা সর্বপ্রথম এই বিস্ময়কর ব্যাপারটি লক্ষ্য করে। তাই অতীতকালের চীনের সম্রাটগণ কোনো  গুরুত্বপূর্ণ দলিল বা প্রমাণপত্রে সই করতে তাদের বুড়ো আঙ্গুলের ছাপ লাগিয়ে সই করতেন।
এরপর স্যার ফ্রান্সিস গ্যালটন নামে জনৈক ইংরেজ বিজ্ঞানী ১৮৯২ সালে সর্বপ্রথম আঙ্গুলের ছাপের উপর বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণা করেন এবং আঙ্গুলের ছাপের বিস্ময়কর ভিন্নতার সত্যতা প্রমাণ করেন। এই প্রমাণের পর থেকে আঙ্গুলের ছাপ দেখে অপরাধী সনাক্ত করার পন্থা উদ্ভাবন করা হয়। আঙ্গুলের ছাপ দেখে অপরাধী সনাক্ত করার এই পদ্ধতি আবিষ্কার করেন স্যার এডওয়ার্ড হেনরি নামে জনৈক সমাজবিজ্ঞানী। সেই থেকে আজও বিশ্বের পুলিশ বিভাগ হাতের আঙ্গুলের ছাপ দেখে চোর-ডাকাত-খুনীকে সনাক্ত করে।
স্যার এডওয়ার্ড হেনরি আঙ্গুলের ছাপের গঠন অনুসারে এদেরকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করেছেন। যেমন- ১. ঘূর্ণায়মান রেখা , ২.  দু-ফুাঁসওয়ালা রেখা, ৩. ফাঁসের রেখা, ৪. কেন্দ্রীয় ফাঁসের রেখা , ৫. তোরণাকার রেখা , ৬. অনিয়মিত রেখা ।
আঙ্গুলের ছাপের রেখাস্পলোর সংখ্যা গুণে গুণে প্রত্যেকটিকে এক-একটি গ্রুপে ভাগ করা হয়। এরপর আবার সবস্পলো গ্রুপকে একত্র করে তৈরি করা হয় একটি ইউনিট। প্রত্যেক মানুষের হাতের আঙ্গুলের ইউনিট আলাদা।
সূত্র: জ্ঞান কোষ, ভবেশ রায়

Published : জুন ৮, ২০১৭ | 1960 Views

  • img1

  • জুন ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মে   জুলাই »
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • Helpline

    +880 1709962798