• প্রচ্ছদ
  • /
  • ভ্রমণ
  • /
  • সেন্টমার্টিনে ১০৬ অবৈধ রিসোর্ট ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ

সেন্টমার্টিনে ১০৬ অবৈধ রিসোর্ট ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ

Published : জুন ৩, ২০১৭ | 1743 Views

ছবি: জাহাঙ্গীর আলম শোভন

সম্প্রতি সেন্টমার্টণে দ্বীপে হোটেল রিসোর্ট সরিয়ে ফেলা নিয়ে নানা জল্পনা কল্পনা দেখা দিয়েছে। পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো ক্রমাগত চাপ দিয়ে আসছিলো। অবশেষেপরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে যেসব হোটেলকে স্থাপনা সরিয়ে নিতে নোটিশ দেয়া হয়েছে।
ভেঙ্গে ফেলার তালিকাভুক্ত রিসোর্ট গুলো- ময়নামতি রিসোর্ট,
হোটেল সী ভিউ রিসোর্ট,
শাহ জালাল রিসোর্ট,
জারিফ রিসোর্ট,
হোটেল সী প্রবাল রিসোর্ট,
মার্মেট রিসোর্ট,
গ্রিনল্যান্ড রিসোর্ট,
ওশান ব্লু রিসোর্ট,
একতা সেন্টমার্টিন রিসোর্ট,
হোটেল দি ল্যাগন রিসোর্ট,
হোটেল আইল্যান্ড প্রাসাদ,
সেন্টমার্টিন প্রাসাদ,
বে অব বেঙ্গল,
হোটেল সী গোল গেস্ট হাউস,
দেওয়ান রিসোর্ট,
ফোর স্টার রিসোর্ট,
হোটেল স্বপ্ন বিলাস রিসোর্ট,
হোটেল ডলফিন রিসোর্ট,
প্রিন্স হেভেন,
প্রাসাদ প্যারাডাইস,
হোটেল ফ্যান্টাসি,
ব্লু মেরিন রিসোর্ট-১,
হোটেল সেন্টশোর,
হোটেল সমুদ্র পুরী,
হোটেল সী ব্লু রিসোর্ট,
রোজ মেরি রিসোর্ট,
হোটেল রিয়াত গেস্ট হাউস,
হোটেল আল বাহার,
রিসোর্ট ব্লু প্যারাডাইস,
সেভেন স্টার রিসোর্ট,
হোটেল সী হার্ট রিসোর্ট,
রাজ মহল রিসোর্ট,
রোকসানা রিসোর্ট,
হোটেল সী-স্যান্ড রিসোর্ট,
হোটেল সী ইন ইকো ভিলেজ,
জল-পরি রিসোর্ট,
স্বপ্ন প্রবাল রিসোর্ট,
ফাহাদ রিসোর্ট,
সি.টি.বি রিসোর্ট,
ওশান ভিউ রিসোর্ট,
সমুদ্র বিলাস,
সান-সেড ভিউ রিসোর্ট,
প্রবাল রিসোর্ট,
হোটেল অবকাশ,
হোটেল সালমা,
সেন্টমার্টিন ডাক বাংলো,
বে-ভিউ রিসোর্ট,
সেন্টমার্টিন রিসোর্ট,
শাহীন রিসোর্ট,
হোটেল রোজ মেরী,
ব্লু প্যারাডাইস, ব্যাটাস রিসোর্ট,
ব্লু মুন রিসোর্ট,
প্রবাল-দ্বীপ রিসোর্ট,
রূপসী বাংলা রিসোর্ট,
ব্লু সী ইষ্টান রিসোর্ট,
সমুদ্র কানন রিসোর্ট,
লাইট হাউজ রিসোর্ট,
কোরাল ভিউ রিসোর্ট,
রত্ন দ্বীপ রিসোর্ট,
সাইরি ইকো রিসোর্ট,
কিংশুক রিসোর্ট,
চন্দ্রবিন্দু রিসোর্ট,
নীল দিগন্ত রিসোর্ট,
সী ওয়াল্ড রিসোর্ট,
বাগান বাড়ি রিসোর্ট,
সমুদ্র কোটি রিসোর্ট,
নীল সীমান্ত রিসোর্ট,
নারিকেল বাগান রিসোর্ট,
সীমানা পেরিয়ে রিসোর্ট,
মায়া দ্বীপ রিসোর্ট,
সমুদ্র বাড়ি রিসোর্ট,
ব্লু লেগন রিসোর্ট,
সেলার মুন রিসোর্ট,
ড্রিম নাইট রিসোর্ট,
পান্না রিসোর্ট,
লাবিবা বিলাস (আবাসিক),
ডায়ম- রিসোর্ট,
রেহেনা কটেজ,
নেট রিসোর্ট,
সান সেট সেরেনিটি রিসোর্ট,
জেন রিসোর্ট,
ইকো রিসোর্ট,
কোকোনাট কোরাল রিসোর্ট,
মিউজিক রিসোর্ট,
কোরাল ব্লু রিসোর্ট,
ব্লু মেরিন রিসোর্ট-২,
এস.কে.ডি আমার বাড়ি,
সাউথ পয়েণ্ট রিসোর্ট,
কক্স-বাংলা রিসোর্ট,
জামাল ফোর কটেজ,
নিউ আল বাহার কটেজ,
ব্লু সী ইর্স্টান রিসোর্ট,
মিউজিক রিসোর্ট,
প্লাস কটেজ,
সমুদ্র কুটির,
ঢাকা কটেজ,
হোটেল সাগর,
ফাহাদ রিসোর্ট,
লেডস শো গ্রিন,
আবহাওয়া পর্যবেক্ষনাগার,
আল সাইড কটেজ,
জল নুপুর কটেজসহ ১০৬টি।
এর আগে গত ২১ এপ্রিল সেন্টমার্টিনে ৩৮টি আবাসিক হোটল ভাঙার নির্দেশ দিয়েছিল পরিবেশ অধিদপ্তরের কক্সবাজার কার্যালয়। ২০ মের মধ্যে হোটেল মালিক পক্ষকে নিজ দায়িত্বে হোটেল ভেঙে তা সরিয়ে নিতে বলা হয়।
পরপর দুটি নির্দেশনার বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্রগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মো. মাসুদ করিম বলেন, ‘কক্সবাজার কার্যালয় আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ২৮টি হোটেলকে নোটিশ দিয়েছিল। তাদের নিয়মিত কাজের অংশ হিসেবে তারা এ নির্দেশনা দিয়েছিল। আমরা এখন পরিবশ আইন অনুযায়ী ১০৬টি হোটেলকে নোটিশ দিয়েছি। আমাদের নির্দেশনার মধ্যে ওই ৩৮টি হোটেল সংযুক্ত করা হয়েছে।’
কক্সবাজারের পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটির (ইয়েস) প্রধান নির্বাহী এম ইব্রাহিম খলিল মামুন বলেন, ইয়েস দীর্ঘদিন সেন্টমার্টিনের পরিবেশ রক্ষায় কাজ করছে। একটি জরিপ করে ১০৬টি আবাসিক হোটেলের তালিকা তিনি পরিবেশ অধিদপ্তরকে দিয়েছিলেন।

Published : জুন ৩, ২০১৭ | 1743 Views

  • img1

  • জুন ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মে   জুলাই »
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • Helpline

    +880 1709962798