স্মুতি বিজড়িত ইলিয়ট ব্রিজ

Published : এপ্রিল ২৪, ২০১৭ | 904 Views

ইলিয়ট ব্রিজ সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জের ইলিয়ট ব্রিজ
Jahangir Alam Shovon
সিরাজগঞ্জ শহরের বুক চিরে দাড়িয়ে আছে ইংরেজ সাহেব ইলিয়ট এর নামে নাম করা ইলিয়ট ব্রিজ। সোয়া একশ বছরের পুরনো এই ব্রিজ ইতিহাস ঐতিহ্যের স্বাক্ষী। সিরাজগঞ্জের তৎকালীন ইংরেজ মহুকুমা প্রশাসক বিটসন বেল একদিন শহরের পশ্চিমপাড় হতে পূর্বপাড়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় আরো একজিন সাধারণ মানুষ নদী পার হচ্ছেন। লোকটির কাছে টাকা নেই তাই মাঝি বিনা পয়সায় নদী পার করতে চায়না। ওই ব্যক্তি দিনে আনে দিনে খায়। সেদিন পুরো উপার্জন এর বিনিময়ে পরিবারের জন্য খাদ্য কেনায় তার কাছে আর টাকা ছিলনা। আবার নদী পাড়ি দিয়ে খাবার নিয়ে বাসায় না গেলে তার পরিবার অনাহারে ।  বেলের অনুরোধে মাঝি লোকটিকে নদী পার করে দেয়। এ ঘটনার পরই বেল নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগী হন।
১৮৯২ সালে যখন ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়  যমুনার শাখা নদী ছিল সিরাজগঞ্জ শহরকে দুইভাগ করা হুড়া সাগরের উপর।  এর আগে নৌকা ছাড়া পারাপারের কোনো সুযোগ ছিল না। নদী দিয়ে চলাচল করত বড় বড় লঞ্চ, স্টিমার ও পালতোলা নৌকা।  স্থানীয় লোকদের ভাষ্য অনুযায়ী এই ব্রিজের মাঝখানে কিছুটা খালি ছিলো। যাতে করে বড় নৌকা ও ছোট জাহাজ পাল তুলে যেতে পারে। মাঝখানে একটা আলগা অংশ থাকতো যখন নৌকা যেত তখন সেটুকু আলাদা করা হতো আবার নৌকা চলে গেলে জুড়ে দেয়া হতো। এটা ছিলো ইলিয়ট ব্রিজের অনন্য নির্দর্শন।
সেই সময়ে বেল সাহবের আহবানে শহরের ব্যবসায়ীরা চাঁদা তুলে তহবিল গঠন করেন। তৎকালীন পাবনা জেলা বোর্ড ব্রিজ নির্মাণে ১৫ হাজার টাকা মঞ্জুর করে। প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা ব্যয়ে ইলিয়ট ব্রিজ নির্মাণ করা হয় শহরের লোকদের দ্বারা বানানো কমিটি কতৃক। ১৮৯২ সালের ৬ আগস্ট বাংলা ও আসামের তৎকালীন গভর্নর স্যার চার্লস ইলিয়ট ব্রিজটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। পরে তার নামানুসারে নামকরণ করা হয় ইলিয়ট ব্রিজ। বর্তমানে ১৮০ ফুট দীর্ঘ ও ১৬ ফুট প্রস্থের এই ব্রিজটির বর্তমান নাম বড়পুল। হুড়া সাগর ব্রিজও বলা হয়।
ভূমি সমতল থেকে কমপক্ষে ২৫ ফুট উঁচু বড়পুলের মাঝামাঝি দাঁড়ালে  একসময় গোটা শহর দেখা যেত। এটি এ অঞ্চলের ইতিহাস-ঐতিহ্যের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত। সাম্প্রতিক কালে ইলিয়ট ব্রিজ ভেঙ্গে নতুন ব্রিজ করার উদ্যোগ নেয়া হলে স্থানীয় সচেতন নাগরিক সমাজ প্রতিবাদ করে। তাদের দাবী ইলিয়ট ব্রিজকে ভেঙ্গে নয়। এই ব্রিজকে রেখেই তার পাশে ব্রিজ নির্মাণ করা যাবে।

Published : এপ্রিল ২৪, ২০১৭ | 904 Views

  • img1

  • এপ্রিল ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মার্চ   মে »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • Helpline

    +880 1709962798