শেরপুরের গড় দলিপা বা গড় জরিপা দূর্গ

Published : এপ্রিল ১১, ২০১৭ | 1119 Views

গড়দলিপা

শেরপুরের গড় দলিপা বা গড় জরিপা দূর্গ

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

 

ইতিহাসের বহু ঘটনার স্বাক্ষী ময়মনসিংহ বিভাগের শেরপুর জেলার গড় জরিপার বা গড় দলিপা আজ থেকে ৫শ বছর আগে কামরুপ থেকে আসা কোচ রাজা দলিপ সামন্তের মাটিদুর্গ এখন ধ্বংস হয়ে গেছে। আধিপত্য পোক্ত করার জন্যে দলীপ সামন্ত গড় দলীপা দূর্গ নির্মাণ করেন। তবে মাটির দুর্গের ৪টি জাঙ্গালের  জাঙ্গালিয়া বা পরিখা মধ্যে ১টির এখনো অস্তিত্ব রয়েছে।

১৪৫০ খ্রিষ্টাব্দের দিকে বৃহত্তর ময়মনসিংহের শেরপুর অঞ্চলে দলিপা নামক একজন কোচ রাজা রাজত্ব করতেন। উত্তরের গারো পাহাড়ের কড়ই বাড়ি, খুটিমারী, বার হাজারী হইতে দক্ষিণে ব্রহ্মপুত্র নদ এবং পূর্বে নেতাই নদী হইতে পশ্চিমে ব্রহ্মপুত্র পর্যন্ত তাঁর রাজত্ব বিস্তৃত ছিল। তাঁর রাজধানী ছিল গড় জরিপা। দিলীপ সামন্ত বা দিলীপ সিংহের শেরপুর অধিকার ও রাজত্বকাল নিয়ে বিভিন্নরকম তথ্য পাওয়া যায়।

শেরপুর শহর থেকে ১২ কিলোমিটার উত্তরে ভগ্ন গড়জরিপার দূর্গ।  এই দূর্গে নকশার বিশেষ কাজ না থাকলেও ঐতিহাসিক বিবেচনায় এবং আকারের কারণে এর বিশেষ স্থান রয়েছে। তিনটি প্রাচীর দ্বারা বেষ্টিত ছিল। বাইরের প্রাচীর ও মাঝখানের প্রাচীরের মধ্যে ছিলো পরিখা। চারদিকে চারটি প্রবেশপথ। এগুলোরো আবার ভিন্ন ভিন্ন নাম রয়েছে। পূর্বদরজা কামদুয়ারী, পশ্চিমদরজা পানিদুয়ারী, দক্ষিণদরজা শ্যামশেখরদুয়ারী, উত্তরদরজা খিরদুয়ারী।

কোচ সম্প্রদায়

জানা যায় সম্রাট আকবরের সময় এ অঞ্চলের নাম ‘দশ কাহনীয়া বাজু বলে’ ইতিহাসে পাওয়া যায়। তবে এ অঞ্চলের কোচ শাসক দলিপ সামন্তের রাজ্যের রাজধানী গড় জরিপার উল্লোখ আছে।  দলিপ সামন্তের নাম থেকেই এর নাম হয় গড় দলিপা কালক্রমে বিকৃত হয়ে এই নাম গড়জরিপায় রুপান্তরিত হয়।

১৪৯১ খ্রিস্টাব্দে ফিরোজ শাহ স্বাধীন বাংলার নবাব হলে সেনাপতি মজলিশ শাহ হুমায়ন এটি অধিকার করেন। ঐতিহাসিক তথ্য অনুযায়ী ১৫১৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে শেরপুর অঞ্চল স্থায়ীভাবে বাংলার স্বাধীন পাঠান সুলতানদের অধিকারে আসে।

শজলিস খান হুমায়ন শাহ চতুর্দশ শতাব্দীতে গড়জরিপাকে পথচারীদের জানমাল পাহাড়িয়া দস্যু ও ঠগদের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য একটি বিরাট দূর্গ ব্যবহারের অনুমতি দেন।

১৮৫৭ সালের প্রলয়ংকরী ভূমিকম্পে অনেক কিছুই ভেঙ্গে চূর্ণ হয়ে যায়।  পরিখাগুলো সব সময় পানিতে পূর্ণ হয়ে খাল বা লেকের মত দেখাত। এর মধ্যে আবার নৌকা আকৃতির একটা দ্বীপ রয়েছে। ভূমিকম্পের পর আর দ্বীপটির অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। দূর্গের ভেতরে বেশকিছু দিঘী ছিলো সম্ভবত সৈন্য ও হাতি ঘোড়াদের গোসল এবং প্রয়োজনীয় জলের সংকুলান করার জন্য দিঘীগুলো খনন করা হয়েছিল। কালের পরিক্রমায় দিঘীগুলোও ভরাট হয়ে চলেছে। এর মধ্যে মতি মিয়ার তালাও নামে একটি জলাধার ছিলো। পরবর্তীকালে ঐ বিরাট দুর্গ এলাকা এখন কৃষিক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।কিন্তূ এখনও দুর্গ প্রাচীর ও দুর্গ পরিখার কিছু কিছু চিহ্ন বর্তমান আছে।  এখানে একটি পুরানো মসজিদও আছে।

গড়জরিপা

ভেতরের প্রাচীরের মধ্যে ১.১৭০ বিঘা জমি। প্রাচীরের উচ্চতা ২৫ ফুট থেকে ৪৩ ফুট পর্যন্ত। প্রাচীরের পরিধি প্রায় ৫ কিলোমিটার। পরিখাগুলো ৪৫০ ফুট থেকে ৯০০ ফুট পর্যন্ত চওড়া। জনশ্রুতি অনুযায়ী আজ থেকে প্রায় ৫শ বছর আগে দিলীপ নামে একজন বনিক সর্দার এখানে বসতি স্থাপন করেন। তিনি গ্রারো ও অন্যান্য আক্রমণকারীদের থেকে রক্ষার জন্য দূর্গ ও পরিখা নির্মাণ করেন। ফিরোজ শাহের রাজত্বকালে (১৫৫১-৮৭) এই সময়ের মধ্যে মজলিশ শাহ নামক এক সেনাপতি দূর্গ আক্রমণ করেন।  দিলীপ সামন্তকে হত্যা করে দূর্গ দখল করেন।  দূর্গে এখন মজলিস শাহ হুমায়ন এর সমাধি এবং শিলালিপি থেকেছিলো। পরে আরবি ও ফার্সী শিলালিপি থেকে এর পাঠোদ্বার করা হয়। তাতে লিখা ছিলো ‘‘পরম করুনাময় আল্লাহর নামে শুরু করছি (বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম) আল্লাহ ছাড়া কোনো মাবুদ নেই, মুহাম্মদ (স) আল্লাহর রাসুল। (লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ)। আল্লাহর মনোনীত (হযরত) আলী (রা) পবিত্র হৃদয় (হযরত) ফাতিমা (রা) তাদের সন্তান এবং (হযরত) হাসান (রা, (হযরত) হোসেন (রা) এবং এ যুগের বাদশাহ শেইফল দুনিজা ওয়াদ্দিন আবদুল ফিরোজ শাহের আদেশে নির্মিত। মহান আল্লাহর ইচ্ছায় তার রাজ্য ও রাজত্ব চিরস্থায়ী হোক। পবিত্র রমযান মাসের অস্টম তিথিতে ইহা নির্মাণ করা হয়।

গড়জরিপা

শেরপুর জেলার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ মুক্তি সংগ্রাম জাদুঘরের প্রধান স্থপতি নাহাজ খলিল সাহেবের হাতে শেরপুরের ঐতিহাসিক গড় দলিপার স্মারক তুলে দিচ্ছেন।

১৫৭৬ সালে কুচবিহারের রাজা লক্ষীনারায়ন এর সাথে তার গদিপ্রত্যাশী পটকানোয়ারের বিবাদ তুঙ্গে উঠলে এই সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানে বাংলার শাষনকর্তা মানসিংহ কিছুদিন এই দূর্গে বসবাস করেন।

(তথ্য: ময়মনসিংহের পুরনো পত্রিকা থেকে, বইপত্র ও ইন্টারনেট থেকে, ছবি: ফেসবুক থেকে)

 

Published : এপ্রিল ১১, ২০১৭ | 1119 Views

  • img1

  • এপ্রিল ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মার্চ   মে »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • Helpline

    +880 1709962798