পায়ে হেঁটে দেশভ্রমনে শোভন

Published : আগস্ট ২৬, ২০১৬ | 880 Views

পায়ে হেঁটে দেশভ্রমনে শোভন

প্রতিবেদন:

পায়ে হেঁটে দেশভ্রমণের সময় তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভ্রমণ স্থানগুলোর তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করেছেন, চলার পথে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে সেখানকার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছেন এবং দেশের হয়ে কাজ করার জন্য তাদের অনুপ্রাণিত করেন।
এছাড়া এ সময়ে তিনি বিভিন্ন এলাকায় শিশু নির্যাতন বন্ধ, লোকসাহিত্য সংরক্ষণ, পরিবেশ সংরক্ষণ, বৃক্ষ রোপণ, বাল্যবিয়ে রোধ ও মাদকবিরোধী জনমত গঠনে কাজ করেন। তিনি প্রায় ৫০ হাজার মানুষের সাথে মতবিনিময় করেন।

জাহাঙ্গীর আলম শোভন। চাকরি করেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে। তার এই পরিচয়ের বাহিরে সব থেকে ভাল পরিচয় তিনি একজন সমাজকর্মী।
পদ্মা মেঘনা যমুনার জল বয়ে গেলো অনেক আর জাগতিক নিয়মে শুরু করলেন দ্বৈত জীবন। বিয়ের তিনবছরে শেষে এক সন্তানের পিতা হলেন পিতৃত্ব তাকে যেন আরো বেশী স্পৃহা এনেদিলো।

সরকার ২০১৬ সালকে পর্যটন বছর বলে ঘোষণা দিয়েছে। তাই পায়ে হেঁটে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ পর্যন্ত পাড়ি দেয়ার এই সিদ্ধান্ত।
অবশেষে দেশদেখা নাম দিয়ে গত ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধা জিরোপয়েন্ট থেকে পদযাত্রা শুরু করেন। ‘দেখবো বাংলাদেশ গড়বো বাংলাদেশ’ স্লোগান ধারণ করে গত ২৮ মার্চ ২০১৬ টেকনাফ ভ্রমণ করেছেন । ছোটকাল থেকেই দুঃসাহসিক কাজ পছন্দ করেন শোভন।
বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের পৃষ্ঠপোষকতায় ট্যুরডটকমডটবিডির সহযোগিতায় ১১৭৬ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে লক্ষ্য স্পর্শ করেন শাহপরীর দ্বীপের গোলারচরে ২৮ তারিখ বিকেল ৫টায়। এ সময় তিনি লাল সবুজের পতাকা উড়িয়ে দেশের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন। দিনরাত্রি ডটকম ছিলো তার অনলাইন রিয়েল টাইম ট্রাকিং পার্টনার।

এই সফরে দেশের ১৮টি জেলা পায়ে হেঁটে পাড়ি দিয়েছেন শোভন। এই পথে হাজার কিলোমিটার রাস্তা হলেও পথে পথে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান দেখাও সামাজিক কর্মসূচীতে অংশগ্রহনের কারণে দেড়শো কিলোমিটার পথ বেশ পাড়ি দিতে হয়েছে তাকে।

এছাড়া শোভন একজন ই-কমার্স ও বিজনেস কনসালটেন্ট, অনলাইন লেখক। সফর শেষে পুরো বিবপরনী নিয়ে বই লিখেছেন তিনি। আগামী বইমেলায় এই বই প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে।
তিনি শুধু দেশই দেখেননি, দেশের প্রকৃতি পরিবেশ ও পর্যটনের  সমস্যা ও সম্ভাবনা তিনি যা দেখেছেন তা তুলে ধরবেন এই বইতে। শোভন বিভিন্ন স্থানের শোভন ছবি তুলেছেন গুরুত্ব স্থানগুলোতে সেলফি তুলেছেন, গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে কথা বলেছেন।
সীতাকুন্ড ভিডিও:
বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়েছেন এবং মানুষের স্বাক্ষর সংগ্রহ করেছেন। এগুলো মূলত তার হাঁটার পক্ষে শক্তিশালী প্রমাণ বহণ করে।
এছাড়া তিনি ১৮ ইঞ্চি বাই ৩৬ ইঞ্চি মাপের একটি বেবী স্ট্রলার বা ট্রলি নিয়েছেন যাতে তার ব্যাগপত্র বহন করা যায়। প্রতিদিনের আপডেটগুলো তিনি তার ফেসবুক প্রোফাইলে দিয়েছেন।
জাহাঙ্গীর আলম শোভন বিভিন্ন জেলার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সাধারণ মানুষদের প্রশংসা করেন।
তিনি বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন, ইভেন্টের স্পন্সর ট্যুর ডটকম ডটবিডির সিইও লায়ন মোহাম্মদ ইমরান, দিনরাত্রি ডটকমের সিইও সাহাব উদ্দীন শিপন, ওয়ালেটমিক্স সিইও জনাব হুমায়ন কবীর ও স্পাইস ডিজিটাল এর কান্ট্রি ম্যানেজার রেজওয়ানুল হক জামিকে ধন্যবাদ জানান।
একটি ভিডিওূ
ফোকাস ফ্রেম, কিনলে ডটকম ও জার্নি প্লাসকে ধন্যবাদ জানান তার সফরে বিভিন্ন সহযোগিতা করার জন্য।
এই ইভেন্টের ফটোগ্রাফার ছিলেন রুহুল কুদ্দুছ ছোটন কমিউনিকেশান ম্যানেজার ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফ আলী।
পাঁয়ে হেঁটে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ সফর সফল হওয়ায়  জাহাঙ্গীর আলম শোভনকে সম্মাননা জানিয়েছে ই কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ
শোভনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিভাগীর কমিশনার জনাব মোহাম্মদ রুহুল আমীন, ফেণী জেলা প্রশাসক জনাব আমীন আল আহসান,  পাটা বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সেক্রেটারী জেনারেল জনাব তৌফিক রহমান।

শোভনের মূল বক্তব্য হলো—এই দেশটা আমাদের, আমরাই এই দেশকে গড়ব। আমরা যার যার অবস্থান থেকে দেশের জন্য কিছু করব। এ ছাড়া তিনি শিশু নির্যাতন বন্ধ, লোকসাহিত্য সংরক্ষণ, পরিবেশ সংরক্ষণ, গাছ লাগানো, বাল্যবিবাহ রোধ ও মাদকবিরোধী জনমত গঠনে কাজ করেছেন।
শোভন বলেন, এটা একটা ভ্রমণ কর্মসূচী হলেও এর সামাজিক দিক রয়েছে। আমার মূল স্লোগান হলো ‘‘দেখবো বাংলাদেশ গড়বো বাংলাদেশ’’ এর মানে হলো আমার আমাদের দেশ ও এর সৌন্দর্যকে দেখবো এর সম্পর্কে জানবো এবং দেশ গড়ার কাজে অংশ নেবো। সমাজের যে স্তরেই থাকিনা কেন আমাদের দেশ ও জাতির প্রতি আমাদের নিজস্ব দায়িত্ব রয়েছে জাতি আমাদের কাছে তা প্রত্যাশা করে।
আমারদের উচিত প্রত্যেকের নিজের জায়গা থেকে দেশের জন্য কিছু না কিছু করা। অনেক কিছু করতে না পারলেও আমরা অন্তত এতটুকু করতে পারি যে আমরা এমন কোনো কাজ করবো না যাতে আমাদের দেশের ক্ষতি হয়।
আমরা বড়ো হয়ে দেশের হয়ে কাজ করবো, দেশের জন্য কাজ করবো।
পরিবেশ সংরক্ষণ করবো, গাছ লাগাবো, শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ করবো
শিশু অধিকার আদায়ের চেষ্টা করবো, প্রতিটি শিশুর শিক্ষার যে অধিকার রয়েছে তার জন্য চেষ্টা করবো,
বাল্যবিবাহ সমাজের এক অভিশাপ এর প্রতিরোধ করবো ,মাদক
মাদক প্রতিরোধ করবো।
আমাদের দেশের যে নিজস্ব সংস্কৃতি রয়েছে তার জন্য আমরা কাজ করবো।
আমাদের দেশের জন্য আমাদেরকে কাজ করতেই হবে।।।

Published : আগস্ট ২৬, ২০১৬ | 880 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798