কনটেন্ট: প্রযুক্তি বাজারের আগামী দিনের পন্য

Published : আগস্ট ১৪, ২০১৬ | 1353 Views

কনটেন্ট: প্রযুক্তি বাজারের আগামী দিনের পন্য
জাহাঙ্গীর আলম শোভন

অনলাইনে ব্যবসায় করতে হলে সব সময় প্রয়োজন হয় ভিজিটর। ভিজিটর বাড়ানোর জন্য SEO করুন অথবা নাই করুন। কনটেন্ট লাগবেই। এখন কনটেন্ট কোথায় পাওয়া যাবে। ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করে দিলেই হয়ে যাবে। নাকি কোয়ালিটি নতুন , ইউনিক এবং মানুষ দেখতে চায় এমন কনটেন্ট লাগবে। কোথায় পাওয়া যাবে এমন কনটেন্ট। আর সেটা নিশ্চয় কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান গবেষণা করে তৈরী করবে। আর সে কনটেন্ট কাজে লাগবে সবার। তাই আগামীর বাজার কনটেন্ট এর বাজার।
কনটেন্ট কি?
কনটেন্ট এর বাংলা অর্থ করলে হয় বিষয় বস্তু। কনটেন্ট এর মধ্যে অনেক কিছু রয়েছে যেমন লেখা বা টেক্স, ভিডিও বা অডিও, ফটো বা ইমেজ, তথ্য বা ইনফরমেশন, আঁকা বা চিত্র এসব। সবকিছুই কনটেন্ট এর মধ্যে পড়ে। কনটেন্ট  হলো এমন এক জিনিস যা কোন মেসেজ বিয়ার করে। এবং কনটেন্ট মাধ্যমে তথ্য আদান প্রদান হয়। যদি কনটেন্ট এর মাধ্যমে তথ্য আদান প্রদান না হয়। তাহলে সেটাকে কনটেন্ট বলা যাবেনা। বর্তমান বিশ্বে কনটেন্ট এর সজ্ঞা ব্যাপক ও বড় হয়ে গেছে। ব্যক্তি বিশেষে ও স্থান কাল এর উপর কনটেন্ট সঙ্ঘা আরো বড়ো হয়ে থাকে। কনটেন্ট মানে তথ্য, কনটেন্ট মানে অভিজ্ঞতা, কনটেন্ট মানে মেসেজ, কনটেন্ট মানে কিছু একটা বক্তব্য।
কনটেন্ট কি কাজে লাগে?
এভাবে না বলে বল্ াউচিত যে কনটেন্ট কি কাজে লাগেনা। কনটেন্ট সবসময় মার্কেটিং এর জন্য অপরিহার্য উপাদান। মার্কেটিং, ব্লগিং, রাইটিং, রিভিউ, প্রেস রিলিজ, প্রপোজাল, প্রোফাইল ইত্যাদি কাজে কনটেন্ট দরকার হয়। মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে পত্রিকা এড, টিভিএড, ভিডিও আরো বিভিন্ন ধরনের মার্কেটিং বা বিজ্ঝাপনের ক্ষেত্রে কনটেন্ট এর প্রয়োজন হয়।
কনটেন্ট কেন গুরুত্বপূর্ন?
কনটেন্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ কনটেন্ট এর উপর নিভ’র করবে আপনার ব্রান্ডিং বা পন্যের সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা। আপনার কনটেন্ট যত সহজ ও কাস্টমার ফ্রেন্ডলী হবে আপনার পন্য বা সেবার খবর ততবেশী রিচ করবে। আপনি কনটেন্ট অহেতুক বেশী বা লম্বা করে যদি আপনার পন্য বা সার্ভিস সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা করতে না পারেন। তাহলে আপনার কনেটন্ট রিচ করার মূল উদ্যোগটাই গুরুব্বপূর্ণ। এজন্য আপনার কনটেন্ট শুধূ গুরুত্বপূর্ণ নয় গুরুত্বপূর্ন হলো আপনার কনটেন্ট এর কোয়ালিটি। এজন্য কনটেন্ট এর গুরুত্ব বোঝার সাথে সাথে কোয়ালিটি কনটেন্ট কি সেটাও বোঝা দরকার।
বর্তমান বিশ্বে কনটেন্ট এর চাহিদা:
বর্তমান বিশ্ব ব্যবসায়িক ট্রানজেকশানে কনটেন্ট এর চাহিদা দিন দিন ব্রধিাধ পাচ্ছে। ইন্টারনেট ব্যবহার বৃদ্ধি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করার প্রবণতা, ব্লগিং, লেখালেখি, এবং অবাধ তথ্যপ্রবাহের সুযোগ সৃষ্টি হওয়াতে কনটেন্ট এর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কারণ সারা পৃথিবীতে আজ ইন্টারনেট ব্যবহার করে তথ্য আদান প্রদান করছি। আমাকে বা আমার প্রতিষ্ঠান বা পন্যকে যদি ধুরদেশে থেকে কেউ সার্চ করে তাহলে আমার সম্পর্কে তার জানা দরকার। সেটা খুব সহজে তখনি জানেত পারে যখন অনলাইনে আমার প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে এবং সেটা খুব সহজে পরিমাণমত এবং সঠিক তথ্য পাবে।
কনটেন্ট মার্কেটিং কি?
কনটেন্ট মার্কেটিং হলো সে মার্কেটিং যে মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনি কনটেনন্ট এর মাধ্যমে আপনি আপনার পন্য বা কোম্পানীকে আপনি ভোক্তার কাছে পৌছে দেবেন। সে কনটেন্ট দেখে ভোক্তা আপনার পন্য কিনতে আগ্রহী হবে। এবং বাজারে এর একটা প্রভাবে পড়বে। সেটাই কনটেন্ট মার্কেটিং। কনটেন্ট এর মাধ্যমে যদি কাস্টমার সন্তুষ্ট হয়ে আপনার পন্য ক্রয় করে থাকে তাহাই কনটেন্ট মার্কেটিং।
বাংলাদেশে কনটেন্ট এর পরিস্থিতি:
দুখের বিষয় হলো সত্যি যে বাংরাদেশে সরকারী বেসরকারী কোন পর্যায়ে ভালো ও এভেলবল কনটেন্ট নয়।  কারো কারো কাছে বিশেষকরে সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে তথ্য উপাত্ত থাকলেও সেসব তথ্য জনগনের জন্য খুব বেশী উন্মুক্ত নয়। তথ্য অধিকার আইনে তথ্য পাওয়ার অধিকার থাকলেও অনেক কস্ট করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায়না। আর গুগলে সার্চ দেয়া মাত্র পৃথিবীতে যেকানে সবাই তার তথ্য দেয়ার জন্য এসইও করতে উদগ্রবি সেখানে আমাদের একানে আমরা তথ্য লুকিয়ে রাখি বা চাহিবা মাত্র পাওয়া যায়না বা ।অনলাইসে খুব বেশী নেই। থাকলেউ আবার সেটা জটিল ভাবে আছে সার্চ দিলে আসেনা ওয়েবসাইটে গিয়ে পিডিএফ ডাউন লোড করতে হয়।  সেক্ষেত্রে আমাদের দেশকে ব্রার্ন্ডি করা বা পরিচিত করা কঠিন হয়ে পড়েছে।
বেসরকারী পর্যায়ের অবস্থাা ও খুব সুখকর নয় ।ে িেবদেশী প্রতিষ।টানের তথ্য যেমন পাওয়া যায় আমাদের দেশে র ভিণœ কোম্পানীর নিজেদের তত্য ও সার্ভিস সম্পর্কে খুব শেী তথ্য পাওয়া যায়না। আবার তথ্যগুলো এজায়গার  সাজানোভাবে নেই। কিছু কিছু তথ্য প্রত্যেকের ওয়েবসাইটে থাকলেও সেটা গুগলসার্চে অতটা সহজলভ্য নয় যতটা পত্রিকার নিউজ হেডলাইন ও ব্লগের লেখাগুলো আসে। আমাদের যেসব সেক্টর ব্যবসায়িকভাবে ভালো আছে সেগুলোর ক্ষেত্রে একই কথা প্রযোজ্য। যেমন আমাদের গার্মেন্টস সেক্টরেই প্রয়োজনেীয় কনটেন্ট নেই। নেই রিয়েল স্টেট বা অন্যান্য সেক্টরের কনটেন্ট। বিশেষকরে দেশের চুরিজম প্রমোট করার জন্যও ভালো ও প্রয়োজনীয় কনটেন্ট নেই। যেসব কনটেন্ট দিয়ে প্রতিযোগিতার্মলক বাজারে পর্যটক আকৃষ্ট করা যায়।
কনটেন্ট এর ভবিষ্যত:
প্রতিনিয়ত কনটেন্ট এর চাহিদা বাড়ছে।  সারা পৃথিবীতে মার্কেটিং অনলাইন নির্ভরশীল ও কনটেন্ট নির্ভরশীল হয়ে যাচ্ছে। পশ্টিচমা বিশে।বর কনটেন্ট রাইটিং পেষা হিসেবে দাড়িয়ে গেছে শুধু এই কারণে যে কর্পোরেট কনটেন্ট এর চাহিদা আমাদের পাশ্ববর্তী দেশ বারতে এবং চীনেও বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাড়িয়েছে। আমাদের দেশে যারা ফ্রি ল্যান্সোর হিসেবে কনটেন্ট লেকেন তারা বিষয়টি বেশ ভালো জানেন।  সুতরাং দুটো কারণে আমাদের দেশে কনটেন্ট এর ভবিষ্যত খুব ভালো।
১.    আমাদের এখানে যেহেতু আগের চেয়ে কনটেন্ট ভালো পর্যায়ে নেই। সেজন্য এখানে এখনি কনটেন্ট ডেভেল্প করার প্রয়োজন ।
২.    যেহেতু মাকের্’টিয় এর জন্য কনটেন্ট নদরকারী এবং এর প্রয়োজনীয়তা দুটোই বৃদ্ধি পাচ্ছে।
কনটেন্ট ও ব্রান্ডিং বাংলাদেশ
শুধু কর্মাশিয়াল বা প্রফেশেনাল নয় দেশের জন্যও কনটেন্ট দরকার। দেশের পজেটিভ দিকগুলো আমরা তুলে ধরে নিজ দায়িত্বে বিভিন্ন কব্লগে লিখে বা ব্লগ বানিয়ে দেশকে প্রমোট করতে পারি।
কাদের কনটেন্ট পেশায় আসা উচিত?
যারা ভালো লেখালেখি জানেন। যারা ব্যবসা বাণিজ্যের বিভিন্ন টার্মস বোঝেন। যারা দেশের মার্কেটিং সম্পর্কে খোজখবর রাখেন। যারা লেখালেখি করে পেশা গড়তে চান। যারা ভালো ইংরেজী জানেন আর যারা ভালো বাংলা জানেন তাদেরও সম্ভাবনা রয়েছে কারণ দেশীয় কোম্পানীগুলোর কাস্টমাররা যেহেতু বাংলা জানেন সেজন্য তাদের জন্য বাংলায় কনটেন্ট প্রয়োজন হবে।

Published : আগস্ট ১৪, ২০১৬ | 1353 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798