আমরা কি সত্যিই কম্পিউটার সিমুলেশনের মধ্যে বাস করছি?

Published : আগস্ট ১৪, ২০১৬ | 1778 Views

আমরা কি সত্যিই কম্পিউটার সিমুলেশনের মধ্যে বাস করছি

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

সম্প্রতি ক্যানিফোর্নিয়ায় হয়ে যাওয়া কোড কনফারেন্সে বিজ্ঞানীরা এই বিষয়টাকে এক রকম অফিসিয়াল স্বীকৃতি দিলেন। তারা বলেন যে, আমরা, এই পৃথিবীর  মানুষেরাআসলেআমরানই? আমরাআসলেআরোকোনোউন্নত ‘কিছু’রহাতেরপুতুল! যেমনটা  থ্রিডিভিডিওগেমেরএকএকটাচরিত্র।  আমরা,যেরকম তাদেরকে নিয়ন্ত্রণ করি এরকম আমাদেরকেও নিয়ন্ত্রন করছে কেউ।

প্যারালাল ইউনিভার্স

ব্যাপারটা ব্যাখ্যা করার জন্য প্যারালাল ইউনিভার্স বা সমান্তরাল মহাবিশ্ব অথবা মাল্টিভার্স বা বহুবিশ্বের কথা ভাবতে পারি। এর ধারণা মতে ঠিক আমাদেরই মতো, একেবারে হুবহু এই বিশ্বজগতের মতো আরে বিশ্বজগত চলেছে সময়ের পথে। যেখানে আমাদের মতোই সবকিছু। তার মানে এ মহাবিশ্বই একমাত্র নয়, রয়েছে একটি অথবা একাধিক কপি। সেক্ষেত্রে এই পৃথিবীর মতো রয়েছে আরেকটা বা অনেকগুলো পৃথিবী!সবই একরকম হলে একাধিক কপি হবে কেন? হয়তো আমার মতো আমি সেখানেও আছি। কোথাও আমি লেখক কোথাও আমি ব্যবসায়ী কোথাও আমি ডাকাত। হাহাহা। কিন্তু হাসি আসলেও হাসতে পারছিনা। কারণ এই বিষয়টির উপর জোর দিয়ে বলেছেন বিজ্ঞানের আয়রন ম্যান খ্যাত এলন মাস্ক।

এলন মাস্ত হলেন অনলাইন মানি ট্র্যান্সেকশন কোম্পানি পেপল, বিলাসবহুল গাড়ি নির্মাতা টেসলা এবং একমাত্র বেসরকারি মহাকাশযান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্সের মালিক । তিনি বলেন, হয়ত আমরা, আমাদের থেকেও উন্নত কোনও ভিনগ্রহবাসীর ভিডিও গেমসের চরিত্র। তার ভাষায়, ‘…Participants in a giant simulation। আমরা যে কোনো কম্পিউটার সিম্যুলেশনের মধ্যে বাস করছি না এর সম্ভাবনা কয়েক বিলিয়ন ভাগের এক ভাগ মাত্র!’ আর ব্রিফ হিস্ট্রি অব টাইমে অনুরুপ কপি জগতের কথা বলেছেন স্টিফেন হকিং। ভাবুন যে পৃথিবীতে যা কিছু আছে তার বাইরে অন্যকোথাও এসবের এক বা একাধিক কপি আছে।

এলন মাস্ক

তারা আরো দাবী করেন ভিনগ্রহের মানুষরা আমাদের প্রেরণ করেছেন বলে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থে ঈশ্বর যখন নিজেকে উত্তম পুরুষে প্রকাশ করেছেন সেখানে আমি শব্দ ব্যবহার না করে আমরা ব্যবহার করা হয়েছে। যদিও  কোরআরনে এই আমরা শব্দ ব্যবহারের ব্যাপারে আরবি ভাষার ব্যাকরণ ও আলেমদের মাঝে অন্য ব্যাখ্যা রয়েছে।
আমার ছোটবেলা থেকেই মনে হয়। এই জীবন জগতের বাইরে আমার আরেকটি সংসার বা পৃথিবী আছে। হয়তো একাধিকও থাকতে পারে। হুমায়ন আহমেদ এর মিসির আলী সিরিজের একটি উপন্যাসে আছে। একযযুবকের দুই জগতের গল্প। সবচে এই জগতের একটি মেয়ের সাথে অন্য জগতে তার বিয়ে হয় তাদের একটি ছেলেও হয়। আর সেই জগত থেকে মজার ব্যপার হলো একদিন সে একটা ছবি ও একটা পত্রিকা নিয়ে আসে তারপর সে মিসির আলীর সাথে দেখা করে বিষয়টা নিয়ে।

২০০৩ সালে বলেছিলেন সুইডিশ দার্শনিক নিক বোস্ট্রম। ফিলোসফিকাল কোয়ার্টারলিতে প্রকাশিত তার পেপারের নাম ছিল ‘Are you living in a computer simulation?’তিনি বলেন সম্ভবত আমরা একটা কম্পিউটার সিম্যুলেশনের মধ্যে বাস করছি। মানে, আমরা বাস্তব নয়। পরাবাস্তবের হাতের পুতুল মাত্র। ইতোমধ্যে পৃথিবীজুড়ে ভিনগ্রহের প্রাণীদের আসার নানা মুখরোচক খবর ও অমীমাংসীত নানা প্রমাণ হাজির করছে অনেকে। সর্বশেষ গুগল আর্থ থেকে মহাসগারের নিচের এলিয়েনর নানা কর্মকান্ডের প্রমাণ হিসেবে অনেক দাগচিহ্ন ‍ও তাদের যানের ধ্বংসাবশেষ পাওয়ার দাবী করা হচ্ছে।

আমি মাঝে মধ্যে ঈদানিং এরকম স্বপ্নে দেখতে পাই । আমার আরেকটা জীবনের আরেকটা সংসারের সেখানে নানা ঘাত প্রতিঘাত নানা অনূভুতি ঘুম ভাঙার পরও আমাকে জড়িয়ে রাখে। মনে হয় সেটাই বাস্তব আর এটা কল্পনা। সে জগতের সব কিছু ভুলে যাই যখন এই জগতে আসি তাই সেটাকে স্বপ্ন মনে হয়। মাঝে মধ্যে এতটা জীবন্ত মনে হয় সত্যি কনফিউসড হয়ে যাই।
এই প্যারালাল জগতের বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা পড়ে ভাবনায় পড়ে গেলাম। তাহলে এই জগতের সব নকল আর সে জগত আসল নয়তো?

 

 

 

Published : আগস্ট ১৪, ২০১৬ | 1778 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798