পরিচ্ছন্ন সেন্টমার্টিন কার্যক্রম ২০১৮

Published : মার্চ ২৪, ২০১৮ | 512 Views

সেন্টমার্টিন প্রস্তুতি

যেহেতু আগামী ৩০ এপ্রিল ২০১৮ সেন্টমার্টিন পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন এর দল প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে। এধরনের একটি ব্যতিক্রমী ভ্রমণে যারা যাচ্ছেন তাদের মধ্যে বেশ উত্তেজনা কাজ করছে। সেটা বেশ টের পাচ্ছি। আমি আজ প্রিপারেশন সম্পর্কে লিখে দিচ্ছি আশা করি সবাই এগুলো অনুসরণ করবে।

 

১. যেখানে ভ্রমণে যাচ্ছি সেখানকার মানুষ, এলাকা ও প্রকৃতি সম্পর্কে ইন্টারনেটে লেখাপড়া করে নেবেন। এতে আনন্দ দ্বিগুন হবে। যা পড়ে যাবেন তা যখন দেখবেন, ভালো লাগবে। কক্সবাজার, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন ও শাহপরীর দ্বীপ এই চারটা স্থান।

২. ২৫-২৭ তারিখের মধ্যে আমরা আবহাওয়ার ব্যাপারটা জেনে নেবে যে, পরবর্তী কয়দিন আবহাওয়া কেমন থাকতে পারে। তার উপর ভিত্তি করে আমরা তারিখ পেছাতে পারি। তবে তারিখ না পিছিয়ে আমরা সেন্টমার্টিন এর পরিবর্তে শাহপরীর দ্বীপে ২ দিনের ট্যুর করে আসতে পারি। কারণ রোজার আগে আর ছুটিসহ ডেট পাওয়া যাবেনা।

৩. সাথে যা যা নেবেন,

১. গামছা (গামছার ‍কি সুবিধা সেটা একবার নিলে বুঝবেন)

২. ছাতা (যেহেতু প্রচন্ড রোদ, আমরা নৌকায়/ট্রলারে যাচ্ছি বলে)

৩. পানির বোতল (সাথে কেউ নিজের জন্য হালকা নাস্তাও নিতে পারেন)

৪. ২/৩ সেট জামা (অবশ্যই পাতলা, সুতি হতে হবে)

৫. সানগ্লাস (প্রচন্ড রোদে চোখকে আরাম দেবে)

৭. মোবাইল ফোন, চার্জার (সেখানে নেটওয়ার্ক ভালো, লাইভে যেতে পারবেন)

৮. অবশ্যই পাওয়ার ব্যাংক (যদিও আমরা যে বাংলোতে থাকবো সেখানে ২৪ ঘন্টা সোলার বিদ্যুৎ আছে. তবুও যেহেতু একরুমে ৩/৪ জন থাকব)

৯. যেহেতু শবে-বরাতের দিন আমরা সেখানে থাকবো। সেহেতু টুপি পাঞ্জাবী নিতে পারেন। একটি দ্বীপে শবেবরাত পালন বা সমুদ্রের পাড়ে বসে আল্লাহর কাছে প্রার্থনার সুযোগ জীবনে দ্বিতীয়বার নাও পেতে পারেন। (শবে বরাতে কি খেতে চান জানাতে ভুলবেন না, কারণ এখন সেখানে সব রেস্টুরেন্ট বন্ধ হয়ে যাবে আর আমাদের খেতে হবে নিজেরা বাবুর্চি ভাড়া করে, নিজেরা বাজার করে রান্না করার মাধ্যমে)

১০. দ্বীপের লোকেরা খুব ধার্মিক। সেখানকার মেয়েরা অবাধ চলাফেরা করেনা। তাদের এই স্পর্শকাতরতাকে আপনি সম্মান করতে হবে। সেখানে চলাফেরায় ও আচরণে মার্জিত হতে হবে।(যদিও এ সময়ে আমরা ছাড়া অন্য ট্যুরিষ্ট থাকবেনা বিচগুলো জনশুন্য থাকবে)

১১. যারা যাবেন সবাইকে ভোর ৪টায় ঘুম থেকে উঠতে হবে। ৫টা থেকে ৭টা পর্যন্ত বিচ পরিষ্কার কাজে অংশ নিতে হবে। কারণ ৭টার পর প্রচন্ড তাপ ও গরম থাকে। বিকেলে অংশ নিতে হবে ব্লাড গ্রুপিং কর্মসূচীতে। (প্রত্যেককে কয়েকটি দলে ভাগ করে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হবে, দ্বীপে নামার পর)

১২. যেহেতু আমরা ট্রলারে যাব। তাই সাহস রাখতে হবে। ভয়-টয় পেলে চলবেনা। মনে রাথতে হবে দ্বীপের লোকেরা শত শত বছর ধরে নৌকায় যাতায়াত করে আর শিপ চলার ৫ মাস বাদ দিলে সারা বছর তারা ট্রলারে যাতায়াত করে। এমনকি ৯৩ সালে অন্তরে অন্তরে ছবির শ্যুটিং এর জন্য সালমানশাহ-মৌসুমী, রাজিব, আনোয়ারা সহ ছবির পুরো টিম ট্রলারে গিয়েছিলো। হুমায়ন আহমেদ স্যারের সেখানে বাড়ী আছে। স্যারও ট্রলার এবং স্পিড বোটে যেতেন।

১৩. যারা সাতার জানেন না। তাদের জন্য ট্রলারে লাইফ জ্যাকেট এর ব্যবস্থা আছে। মনকে বোঝাইতে না পারলে গুলিস্তান, দারাজ কিংবা অন্য কোথাও থেকে লাইফ জ্যাকেট কিনে নিতে পারেন। দাম বেশী নয়।

জাহাঙ্গীর আলম শোভন এর নেতৃত্ব সেন্টমার্টিন দ্বীপ পরিষ্কার প্রোগ্রমের কনটেন্ট। সৌজন্যে ভলানটিয়ার বাংলাদেশ

Published : মার্চ ২৪, ২০১৮ | 512 Views

  • img1

  • মার্চ ২০১৮
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « ফেব্রুয়ারি   মে »
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
  • Helpline

    +880 1709962798