• প্রচ্ছদ
  • /
  • ভ্রমণ
  • /
  • ২ দিনের মিরশ্বরাই ও সীতাকুন্ড ভ্রমণ: একটি লাক্সারী ফ্যামেলি ট্যুর

২ দিনের মিরশ্বরাই ও সীতাকুন্ড ভ্রমণ: একটি লাক্সারী ফ্যামেলি ট্যুর

Published : অক্টোবর ৬, ২০১৭ | 1403 Views

খইয়াছড়ড়া

মুরাদপুর ওয়াইল্ড বিচ, মহামায়া লেক, খইয়াছড়া ঝর্ণা ও সীতাকুন্ড ইকোপার্ক ভ্রমণ:

আয়োজনে ট্যুর ডট কম ডট বিডি

দামের প্রতিযোগিতা নয় মানের প্রতিযোগিতা। যাতায়াত এসি মাইক্রো। আসন সংখ্যা ৮ জন। রাত্রে থাকা শমসের গাজীর ঐতিহাসিক বাঁশের কেল্লা রিসোর্ট। আর ভ্রমণ তালিকায় দেশের নয়নাভিরাম অরন্য সৈকত মুরাদপুর। দেশের একমাত্র ৯ ধাপের ঝর্না খৈয়াছড়া, দেশের প্রথম এবং সবচেয়ে বড়ো ইকোপার্ক সীতাকুন্ড ইকোপার্ক। কৃত্রিম লেকের সাথে পাকৃত্রিম ঝর্ণার মিশেল মহামায়া।
জলদি বুকিং দিতে হবে।

 

ভ্রমণ বৃত্তান্ত

প্রথম দিন: শুভ যাত্রা ভোর ৬টায় মেরুল বাড্ডা আমাদের অফিস থেকে। পথে নাস্তা করে নিতে হবে নিজ দায়িত্বে। তারপর সকাল ১১টা থেকে ১টা মুহুরী প্রজেক্ট

পরিদর্শন। তারপর দুপুরের লাঞ্চ। লাঞ্চের পর মহামায়া লেক। মহামায়া লেকে নৌকা ভ্রমণ ও মহামায়া ঝর্ণায় জলবিলাস। একটু রেস্ট নিয়ে ৪টার দিকে মুরাদপুর ওয়াইল্ড বিচ। এখানে সূর্যাস্ত দেখে। আবার ডেরায় ফেরা। রাত্রি যাপন শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা।

 

দ্বিতীয় দিন: সকাল বেলায় নাস্তা করে খইয়াছড়ার উদ্দেশ্যে রওনা। আগেই বলে রাখি হাঁটতে হবে ৪.২ কিলোমিটার। পুরুষদের জন্য ১ ঘন্টা। মহিলা থাকলে দেড়ঘন্টা লেগে যেতে পারে। দুপুর পর্যন্ত খইয়াছড়া থেকে ফিরে মিরশ্বরাই এসে দুপুরের খাবার।

খৈয়াছড়া

দুপুরে খাবার খেয়ে একটু বিশ্রাম তারপর সীতাকুন্ড ইকোপার্ক। এখানে দুটো ঝর্ণা আছে সুপ্তধারা ও সহস্রধারা। এগুলোতে সাধারণত বর্ষাকালে জলপ্রপাত থাকে। ইকোপার্কের পাহাড়ের উপর থেকে সূর্যাস্ত দেখা। সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে রওনা দিলে রাত ১০টা/১১ টায় ঢাকায় এসে পৌছতে পারবেন।

Mohamaya

যাতায়াত: এসি মাইক্রো।

থাকা: শমসের গাজীর বাঁশের কেল্লা ইকো রিসোর্ট। ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে ২ কিলোমিটার ভেতরে। চম্পক নগরে। ভাটিরবাঘ ও ত্রিপুরার শাষক শমসের গাজীর জন্মস্থান ও প্রশাসনিক কেন্দ্র। এটিও একটি ঐতিহাসিক স্থান।

খাবার:

প্রথমদিন সকালের নাস্তা: পরটা ও ডিম সাথে সবজি বা ডাল

দুপুরে: ভাত, ডাল চিকেন, সবজি ও ভর্তা।

রাতে: ভাত, ডাল ও মাছ

দ্বিতীয় দিন: সকালের নাস্তা: পরটা ও ডিম সাথে সবজি বা ডাল

দুপুরে: ভাত, ডাল মাংশ সবজি ও ভর্তা।

 

খরচাপাতি:

যাবো মাইক্রোভাড়া করে। তাই খরচ একটু বেশী পড়বে। জনপ্রতি= ৭৫০০টাকা।

তিন বছরের শিশুর জন্য চার্জ প্রযোজ্য নয়। তার জন্য আলাদা থাকা ও খাবার অন্তভূক্ত নয়।

১০বছর পর্যন্ত শিশুর জন্য জন্য ৫৫০০ টাকা। আলাদা বেড দেয়া হবে না।

কদম

জেনে রাখা ভালো

১. এটি একটি ফ্যামিলি ট্যুর। তাই একক কোনো ব্যক্তির এন্ট্রি হবেনা। কমপক্ষে ২ জন হতে হবে। কাপল বা ফ্রেন্ড।

২. ভোর ৫টার মধ্যে এসে নির্ধারিত স্থানে উপস্থিত হতে হবে।

৩. খৈয়াছড়া ঝর্ণা দেখতে হলে ৪.২ কিলোমিটার হাঁটতে হবে। মানে প্রায় ৮ কিলোমিটার। কেউ না গেলেও সমস্যা নেই।

৪. আসার যাওয়ার পথের খাবার নিজেরা বহন করতে হবে।

৫. মহামায়া ঝর্ণার টিকেট, গাড়ি পার্কিং বিল, ড্রাইভারের থাকা খাওয়া, গুলিয়াবিচের টিকেট, মহামায়া লেকের নৌকাভাড়া, ইকোপার্কের টিকেট সব মোট খরচের অন্তর্ভূক্ত।

৬. ন্যাশনাল আইডি কার্ড এর কপি সাথে রাখতে হবে।

৭. ঝর্ণায় নামার জন্য বাড়তি কাপড় সাথে রাখতে পারেন।

৮. প্যাকেজের পুরো টাকা অগ্রিম দিতে হবে।

 

যোগাযোগ:

01811 480 832-33।
১। Brac bank (যে কোন ব্রাঞ্চ থেকে টাকা জমা দেয়া যাবে)
একাউন্ট নম্বর : 1512203027806001
একাউন্ট নাম : Tour.com.bd
২। বিকাশ : যদি কেউ বিকাশ করতে চান তাহলে এই নাম্বারে বিকাশ করতে পারবেন : 0১৮১১৪৮০৮২৬ (পারসোনাল)
অফিসের ঠিকানা :
Arma Majeda Malik Tower (3rd Floor), Pragoti Sarani Road, Merul Badda, Dhaka-1212.বিকাশ:

 

Published : অক্টোবর ৬, ২০১৭ | 1403 Views

  • img1

  • অক্টোবর ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « সেপ্টেম্বর   নভেম্বর »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • Helpline

    +880 1709962798