সুন্দরতম গুঠিয়া মসজিদ বরিশাল

Published : এপ্রিল ৬, ২০১৭ | 2317 Views

গুঠিয়ার মসজিদ
বরিশাল-বানারীপাড়া সড়ক ধরে উজিরপুর উপজেলা। গুঠিয়ার চাংগুরিয়া গ্রামটিও সড়কের পাশে। এই গ্রামেই মসজিদটি। ২০০৩ সালে প্রায় ১৪ একর জমির ওপর বায়তুল আমান জামে মসজিদ ঈদগাহ কমপ্লেক্সের নির্মাণকাজ শুরু হয়। লোকজন গুঠিয়ার মসজিদ নামেই বেশি চেনে। তিন বছর পর ২০০৬ সালে নির্মাণকাজ শেষ হয়। মূল প্রবেশপথের ডান দিকে রয়েছে পুকুর। মসজিদের ওপরে ৯টি, বাইরে ৪টি, ভেতরে ছোট ছোট ৭টি এবং মূল প্রবেশদ্বারের দুই পাশে আরো দুটি গম্বুজ রয়েছে। মসজিদের মিনার ১৯৩ ফুট উঁচু। শহরের নথুল্লাবাদ থেকে বানারীপাড়ার উদ্দেশে ১৫ মিনিট পর পর বাস ছাড়ে। ওই বাসে ১৪ টাকা ভাড়ায় মসজিদে যাওয়া যায়।
শেরে বাংলার রেস্টহাউস
বরিশাল জেলা শহর থেকে ২৮ কিলোমিটার দূরে বানারীপাড়া উপজেলা। সেখান থেকে আরো ছয় কিলোমিটার দূরে সন্ধ্যা নদীর তীরের গ্রাম চাখার। এই গ্রামেই জন্মেছিলেন অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরে বাংলা ফজলুল হক। হক সাহেব বাড়ি এলে রেস্টহাউসেই থাকতেন বেশি। এখানে এখন সংরক্ষিত আছে ২৬টি চিঠি, তাঁর একুশটি আলোকচিত্র, চারটি মানপত্র, বংশলতিকা, বইপত্র ইত্যাদি। তাঁর সংগ্রহের একটি কালো পাথরের বুদ্ধমূর্তি এবং শিবলিঙ্গও আছে এখানে। শহরের নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড থেকে ১৫ মিনিট পর পর বানারীপাড়ার উদ্দেশে বাস ছেড়ে যায়। ওই বাসযোগে গুয়াচিত্রা নামের স্টেশনে নামতে হবে। সেখান থেকে রিকশা ও টেম্পোযোগে ফজলুল হকের বাড়ি যাওয়া যায়।
এ ছাড়া ঢাকার সায়েদাবাদ বা গাবতলী থেকে সাকুরা, হানিফ, জিএমসহ বেশ কিছু পরিবহনের বাসে বরিশাল যাওয়া যায়।
কোথায় থাকবেন : রাত কাটানোর জন্য বরিশালে বেশকিছু হোটেল রয়েছে। যেমন হোটেল আলী ইন্টারন্যাশনাল, হোটেল পুনম, হোটেল দিদার, হোটেল গুলবাগ, হোটেল নূপুর, হোটেল ইম্পেরিয়াল ইত্যাদি। ।।

সংগ্রহ

Published : এপ্রিল ৬, ২০১৭ | 2317 Views

  • img1

  • এপ্রিল ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মার্চ   মে »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • Helpline

    +880 1709962798