ভোলার সৌন্দর্য বাড়াবে চরফ্যাশনের ওয়াচ টাওয়ার

Published : এপ্রিল ৩, ২০১৭ | 3736 Views

ওয়াচ টাওয়ার ভোলা

ভোলার সৌন্দর্য বাড়াবে চরফ্যাশনের ওয়াচ টাওয়ার

আগামী দিনের গুরুত্বপূর্ণ ও জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র হতে চলেছে দ্বীপ জেলার চরফ্যাশন উপজেলা। ভৌগলিক অবস্থান, প্রাকৃতিক সুন্দর, নদী বেস্টিত এবং সাগরের নৈকট্য এক ভিন্নরকম সৌন্দয্র্যের  স্বাদ দেবে ভ্রমণ পিপাসুদের। ইতোমধ্যে এখানকার নতুন জেগে ওঠা চরগুলো প্রকৃতিপ্রেমীদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেছে।

ভোলার চরফ্যাশনে নির্মিত হয়েছে উপমহাদেশের সর্বোচ্চ ওয়াচ টাওয়ার। স্থানীয়দের কাছে যেটি ‘জ্যাকবের টাওয়ার’ নামে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। এর উচ্চতা ২১৫ ফুট। এটা সমুদ্র থেকে চোখে পড়ে।   চরফ্যাশন শহরের খাসমহল মসজিদ ও ফ্যাশন স্কয়ারের পাশে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে টাওয়ারটি নির্মাণ করা হয়েছে। লিফট সংযুক্ত টাওয়ারে উচ্চ ক্ষমতার বাইনোকুলার থাকবে। যাতে ১০০ বর্গকিলোমিটার এলাকার সবকিছু অনায়াসে দেখা যায়। প্রায় ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৮তলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন টাওয়ারটি পর্যটকদের দারুণভাবে আকর্ষণ করবে। ৭৫ ফুট মাটির নিচ থেকে ৭০টি পাথর ঢালাই পাইলিং ফাউন্ডেশনের ওপর টাওয়ারটি সম্পূর্ণ ইস্টিলের তৈরি। ৮ মাত্রার ভূমিকম্প সহনীয় টাওয়ারের চূড়ায় ওঠার জন্য সিঁড়ির পাশাপাশি থাকবে ১৬ জন ধারণক্ষমতার অত্যাধুনিক ক্যাপসুল লিফট। টাওয়ারের চারদিকে অ্যালুমোনিয়ামের ওপর ৫ মিলি ব্যাসের স্বচ্ছ গ্লাস থাকবে। এক হাজার বর্গফিটের ১৭তম তলায় বিনোদনের নানা ব্যবস্থা থাকবে।

ভোলা জেলার চরফ্যাশন শহরে বিখ্যাত “আইফেল টাওয়ার” এর মতো নির্মিত হয়েছে এই ওয়াচ টাওয়ার। পুরো  ভোলা জেলাকে  এটি আলাদা পরিচিতি দেবে বলে আশা করছি। ওয়াচ টাওয়ারে উঠলেই পশ্চিমে তেঁতুলিয়া নদী,  পূর্বে মেঘনা,  দক্ষিণে আরেক দর্শনীয় স্থান চর কুকরি-মুকরিসহ বঙ্গোপসাগরের দিগন্তজোড়া জলরাশি নজরে পড়বে। চরফ্যাশনের দক্ষিণে সাগর মোহনার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ কুকরিমুকরি, ঢালচর, তারুয়া সৈকত প্রকৃতির এক অপার সৃষ্টি।

একসঙ্গে দুই শত পর্যটক সেখান থেকেই শক্তিশালী বাইনোকুলারের সাহায্যে কুকরি-মুকরি, তারুয়া দ্বীপসহ চারপাশের একশত বর্গকিলোমিটার পর্যন্ত দেখতে পাবেন। এ ছাড়া থাকবে বিশ্রাম, প্রাথমিক চিকিৎসা ও খাবারের সুব্যবস্থা। টাওয়ারটির মূল উচ্চতা ১৮৫ ফুট। এর ওপর রয়েছে ৩০ ফুট দীর্ঘ সুদৃশ্য ফলক।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসব স্পটে দর্শনার্থী আসছেন। ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলে হরিণ, বানর, বন মোড়গসহ নানা বন্যপ্রাণী রয়েছে। কিন্তু সেখানে পর্যটকদের আকর্ষণ করার মতো কোনো স্থাপনা গড়ে ওঠেনি। প্রাকৃতিকভাবে গড়ে ওঠা অপার সৌন্দর্যের পাশাপাশি আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে চরফ্যাশনে দৃষ্টিনন্দন টাওয়ারটি নির্মাণ করা হয়েছে।

ভোলা যেতে হলে সবচে ভালো রাস্তা হলো সদরঘাট থেকে লঞ্চপথে।

Published : এপ্রিল ৩, ২০১৭ | 3736 Views

  • img1

  • এপ্রিল ২০১৭
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « মার্চ   মে »
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • Helpline

    +880 1709962798