রাসমেলায় চলুন দিনাজপুর কান্তজিউ মন্দিরে

Published : অক্টোবর ৩১, ২০১৬ | 1822 Views

রাসমেলায় চলুন কান্তজিউ মন্দির দিনাজপুর

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

কান্তজির মন্দির বা কান্তজিউ মন্দিরে রাসমেলা চলবে কার্তিক মাসের পূর্নিমা তিথীতে। আর চলতি বছর ২০১৬ সালে কার্তিকমাসের পূর্নিমা পড়বে সফর মাসের মাঝামাঝি। মানে এখন মহররম মাস শেষ হতেই শুরু হবে সফর মাস। হিসেব ঠিক থাকলে নভেম্বর মাসের আজ ৩১ অক্টোবর থেকে ঠিক ১৫ দিন পরেই পূর্নিমা। আর রাসমেলা শুরু হবে তখন। যদি ১৪ নভেম্বর শুরু হয় তাহলে রাসমেলা চলতে পারে দুই থেকে তিন সপ্তাহ। সেই হিসেবে যদি ১৮ ও ১৯ নভেম্বর দিনাজপুর সফরে যাওয়া যায় তাহলে দারুন মজা হবে।

রাসমেলা কোথায়?

দিনাজপুরে রাসমেলা হয় ঐতিহাসিক কান্তজির মন্দিরে। কান্তজির মন্দির নিয়ে বেশী কিছু বলার নেই। ৫ টাকা নোটে এই মন্দিরের ছবি আপনারা অনেকে দেখেছেন। তিনতলা বিশিষ্ঠ কয়েকশ বছরের পুরনো এই মন্দির যত দেখবেন ততই দেখতে ইচ্ছে করবে। এর প্রতিটি ইঁটে পাবেন এক একটি শিল্প। কোনটাতে মেয়েরা মাথায় সিঁথি কাটছে, কোনটাতে গাছ থেকে নারকেল পাড়ছে, কোনটাতে স্বামী স্ত্রী দাওয়ায় বসে গল্প করছে। একএকটি ইট যেন এক একটি গল্প। এই মন্দিরের সামনেই হবে রাসমেলা। এখানে ব্যাপক উন্নয়ন মূলক কাজ হয়েছে। একার বেড়াতে গেলেই বুঝবেন। এতদিন কি মিস করেছেন। উত্তর বঙ্গে ডিসেম্বর জানুয়ারীর চেয়ে নভেম্বর বা ফ্রেব্রুয়ারীতে গেলেই ভালো। শীত কম থাকে।

আর কি দেখা যাবে?

দেখতে চাইলে দেখার মতো অনেক কিছুই আছে। দিনাজপুরে তবে একদিনের জন্য গেলে এতকিছু দেখে কুলাতে পারবেন না। তাই দেখতে যেতে পারেন ফুলবাড়িতে অবস্থিত স্বপ্নপুরি, এটি একটি কৃত্রিম এমিউজমেন্ট পারক। দেখতে পারেন রামসাগর ও রামসাগর জাতীয় উদ্যান। আছে দিনাজপুর রাজবাড়ী। সুখসাগর ও বিরল বিল আসলে দিঘী।

কি কি আকরষণ দিনাজপুরের?

দিনাজপুরের প্রধান আকরষণ কান্তজিউ মন্দির। তারপরেই রামসাগর। তবে খাওয়ার জন্য রয়েছে দিনাজপুরের রসালো মিষ্টি, আছে বীরগঞ্জের স্পেশাল মিষ্টি। তবে ভাতও মানে চাল এখানকার অন্যতম একটা ব্যাপার। আপনি বাসমতি আর চিনিগুড়া চালের ভাত বা পোলাও যা খান চালের ঘ্রাণেই মন ভরে যাবে। এখানকার পানিও খুব সুস্বাদু।

ভ্রমনে গেলে কি করতে হবে?

ভ্রমনে গেলে দলবেঁধে যেতে পারেন। সেক্ষেত্রে দুইদিনের জন্য যাওয়াই ভালো।

কিভাবে যাবেন?

ঢাকা থেকে দিনাজপুর গামী নাবিল পরিবহন, হানিফ, কেয়া, শ্যামলীতে উঠে চলে যাবেন দিনাজপুর। ট্রেনেও যেতে পারেন। এখানে বেশকিছু হোটেল রয়েছে থাকা খাওয়া নিয়ে মোটেই ভাবতে হবেনা।

তবে যদি একটি প্লান আগে থেকেই করে যান সেটাই ভালো। ওখানে একটু শীত পড়ছে। হালকা শীতের জামা নিতে ভুলবেন না।

বিমানেও যেতে পারেন। তাহলে যেতে হবে সৈয়দপুর। সৈয়দপুর থেকে মাত্র ২৫ কিলোমিটার কান্তজিও মন্দির। আর দিনাজপুর হলো ৪০ কিলোমিটার। অনলাইনে বিমােনের টিকেট পেতে: www.cholbe.com, ৩ হাজার টাকায় পাবেন বিমানের টিকেট।

 

Published : অক্টোবর ৩১, ২০১৬ | 1822 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798