মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ: আম্রপুরীর মেজবান

Published : অক্টোবর ৪, ২০১৬ | 1833 Views

মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ: আম্রপুরীর মেজবান

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ কোম্পানী লি: নাম শুনে হয়তো বুঝতে পারছেন জাপানী শব্দ। হ্যাঁ জাপান বাংলাদেশ যৌথ উদ্যোগে শ্যামপুর, কাটাকালি রাজশাহীতে স্থাপিত হয়েছে এই অনন্য উদ্যোগ। গত ২০১৩ সালে মিইওশি লজিস্টিক কোম্পানী লিমিটেড জাপান এবং আকাফুজি এগ্রোটেকনোজিস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে প্রতিস্ঠিত হলো এই কোম্পানী। ‍

dried-mango-less-sugar-added-1-pound-bag-4

কেন মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ?

আমরা জানি বাংলাদেশ হলো পৃথিবীর নবম আম উৎপাদনকারী দেশ। মানে আমের রাজ্যে সেরাদশে বাংলাদেশ। এখানে বার্ষিক প্রায় ১ হাজার মেট্রিকটন আম উৎপাদিত হয়। দেশের শতকরা ৪২ ভাগ আম উৎপাদিত হয় রাজশাহীতে। কিন্তু এই আম সারাদেশে চলে যায়। বেশীরভাগ আমকে আমরা সঠিক পুষ্টিকর ও শুদ্ধভাবে খেতে পারি না। এগুলোতে বিভিন্ন ধরনের ক্যামিকেল থাকে। থাকে কীটনাশক, থাকে জরুরী পেকে যাওয়ার জন্য ক্যামিকেল, থাকে পচন থেকে রক্ষার জন্য ফরমালিন। ফলে দিনে দিনে স্বাষ্থ্যঝুকি বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষের হার্ট, কিডনী ও  ব্লাড ফ্রেসার সংক্রান্ত রোগব্যাধী বেড়ে যাচ্ছে। ক্যান্সার সংক্রমনও বাড়ছে সমান গতিতে। এখনই সচেতন না হলে ভয়াবহ বিপদের মুখোমুখি হতে হবে আমাদের।

তাই সূভ্যেনির হিসেবে উৎপাদিত আমকে বিভিন্নভাবে প্রক্রিয়াজাত করে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে বাজারজাত ও খাদ্যপন্য হিসেবে সরবরাহ করার জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ। একটা বিষয় পরিষ্কার করা দরকার। আসলে স্যুভেনির শপ বলতে আমরা কি বুঝি? কারণ আমাদের দেশে স্যুভেনির শপে বিদেশী চকলেট, চায়না পন্য কখনো কখনো ভারতীয় পন্য বিক্রি হয়। কক্সবাজার আমাদের ‍সবচে বড়ো পর্যটন স্থান সেখানে বিক্রি হয় সব বার্মিজ পন্য। এর চেয়ে বড়ো দৈন্যতা আর কি হতে পারে?

 

 Miyoshi-akafuji

অথচ সুভ্যেনির মানে হলো স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত পন্য। ‍আর আমরা করছি ঠিক তা উল্টোটা। একটা বিষয় বোঝা দরকার একজন বিদেশী ট্যুরিস্ট যদি বাংলাদেশে এসে চায়না বা বার্মিজ স্যুভেনির কিনতে হয় তাহলে তো থাকে চায়না বা মায়ানমারেই যাওয়া দরকার। তাই নয় কি?

এসব বিষয়কে মাথায় রেখে আমকে কেন্দ্র করে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ। কারণ

১. বাংলাদেশে প্রচুর আম উৎপাদিত হয়। বাংলাদেশের আমের মানও যথেষ্ঠ ভালো।

২. বাংলাদেশের মানুষ আম পছন্দ করে। দেশজুড়ে আমের রয়েছে বিশাল বাজার।

৩. আমকে ক্রমশ বিষাক্ত করে ফেলছে ফড়িয়ারা। ফলে জনস্বাস্ত্য ঝুঁকির মুখে পড়ছে।

৪. আজকের শিশু আগামীদের মা বাবা। শিশুরা আম পছন্দ করে। খাবার হিসেবে গ্রহণ করার ফলে শিশুদের শরীরে ঢুকে পড়ছে বিষ। ফলে দেশের ভবিষ্যত প্রচজন্ম বিভিন্ন স্বাস্থগত সমস্যায় পড়ার আশংকা রয়েছে।

৫. বাংলাদেশে আগামী দিনে ট্যুরিজম ভিত্তিক অর্থনীতি বিকশিত হবে। স্যুভেনির পন্য ছাড়া ট্যুরিজম শিল্প পরিপূর্ণভাবে বিকশিত হয়না। তাই আম্রপন্যভিত্তিক স্যুভেনির পর্যটন, কৃষি ও খাদ্যখাত, ফলজ পন্য, দেশীয় শিল্প, পুষ্টিকর খাদ্য সবকিছুকে প্রমোট করবে এই উদ্যোগ। এ ধরনের উদ্যোগ আসলে আরো বেশী বেশী হওয়া উচিত।

 Miyoshi-akafuji

মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ থেকে বলা হয়েছে শুধুমাত্র লাভের জন্য এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করতে চাননি তারা। স্থানীয় এলাকা ও জনগনের উন্নয়নও এই ধরনের প্রকল্পের একটা উদ্দেশ্য। আমকে শুকনো আকারে বাজারজাত করবে মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ। তার সাথে থাকবে আনারস ও কাঁচামরিচ।

যোগাযোগের ঠিকানা:

ফোন: ০১৭০৬ ৬৯৯৬৬১

ই মেইল: info.yat@gmail.com, Web: Miyoshi-akafuji.com

মিইওশি আকাফুজি এন্টারপ্রাইজ, শ্যামপুর , কাটাকালি, রাজশাহী।

Published : অক্টোবর ৪, ২০১৬ | 1833 Views

  • img1

  • Helpline

    +880 1709962798