কমিউনিটি ভিত্তিক পর্যটন এর বিবেচ্যসমূহ

Published : সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ | 1292 Views

কমিউনিটি ভিত্তিক পর্যটন এর বিবেচ্যসমূহ
জাহাঙ্গীর আলম শোভন

কমিউনিটি ভিত্তিক পর্যটন হলো কোনো এলাকার পর্যটনের উন্নয়নে ও পর্যটন সংক্রান্ত কাজে একটি সম্প্রদায়ের সমষ্টিগত দায়িত্ব কিছু এবং একটি প্রতিনিধি সংস্থা দ্বারা সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা ও চলমান ট্যুরিজম পক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করতে প্রয়োজনী কাজ সম্পন্ন করাকে বোঝায়।

cult-exch

একটি এলাকার বাসিন্দারা এক হয়ে তাদের মধ্য থেকে লোকেরা তাদের এলাকায় আসা পর্যটকদের নানা সেবা দিয়ে থাকে। এবং সেবার মাধ্যমে পর্যটকদের আর্কষণ তৈরী করে। এতে করে তারা নিজেদের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন করতেও সমর্থ হয়। কমুউনিটি বেজড ট্যূরিজম বা সিবিটি এক ধরনের স্যোসাল ও ইকো ট্যুরিজম।

কমিউনিটি ভিত্তিক পর্যটন এর মাধ্যমে স্থানীয় বাসিন্দাদের বিশেষ করে গ্রামীণ, দরিদ্র ও অর্থনৈতিকভাবে প্রান্তিক লোকেরা একীভূত হয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে পর্যটকদের আমন্ত্রণ জানান এবং পর্যটকদের খাদ্য, বাসস্থান অন্যান্য সুবিধা বিনিময়ের মাধ্যমে নিজেদের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করেন।

dsj-04-29-03-2016

একটি এলাকায় পর্যটকদের বিভিন্ন সেবার প্রয়োজন হয়। এগুলো স্থানীয় উৎস থেকে স্থানীয় বাসিন্দারা সংকুলান করবেন। এটা বিচ্ছিন্নভাবে না হয়ে সংগঠিত ও দায়িত্বপূর্ণভাবে করা হবে। এটাই হলো কমিউনিটি ট্যুরিজম বা সিবিটির মূল কথা। সিবিটির মাধ্যমে শুধু ট্যুরিস্ট কল্যাণ হবে না। এলাকার এবং এলাকার মানুষের আর্থিক কল্যাণও সাধিত হবে।

বাসিন্দাদের জমি পরিচালকদের, উদ্যোক্তাদের, সেবা এবং প্রদানকারীর উত্পাদন, এবং কর্মচারী হিসাবে আয়. অন্তত পর্যটক আয়ের অংশ প্রকল্প যা একটি সম্পূর্ণ কমিউনিটির সুবিধা প্রদান জন্য সরাইয়া সেট করা হয়।

একটি এলাকায় সেখানকার জনগোষ্ঠিকে ঘিরে যে ট্যুরিজম কমুউনিটি তৈরী করা হবে। তাতে প্রয়োজনে কোনো ব্যক্তি বা সংস্থা, সরকার বা প্রতিষ্ঠান, দাতাগোষ্টি বা এসোসিয়েমান সম্পৃক্ত হতে পারে। তারা তাদের সংগঠিত করণ, এবং প্রশিক্ষণ দিতে পারে। প্রয়োজনে বিনিয়োগ বা ঋণও দিতে পারে।

img_01792

কমিউনিটি ভিত্তিক পর্যটন এর মাধ্যমে স্থানীয় আবাসস্থল এবং বন্যপ্রাণী আবিষ্কার সংরক্ষণ করা সম্ভব এবং স্থানীয় নানা উৎসব ও অনুষ্ঠান উদযাপন এবং ঐতিহ্যবাহী সংস্কৃতি চর্চা, সম্প্রদায়ের ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠান এবং তাদের জ্ঞান, সম্মান ইত্যাদি পর্যটন এর বিষয় হতে পারে। সেটা সাংস্কৃতিক পর্যটন হলেও কম্যুনিটির মাধ্যমে সেবা দিয়ে সেটা সিবিটির আওতায় হতে পারে।

glp-mx_20101015_img_03571

একটি এলাকার বসবাসরতম সম্প্রদায় পর্যটন মাধ্যমে খোনকার প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য বহাল রাখতে পারে এবং সেটাকে প্রমোট করতে পারে। এজন্য বিচ্ছিন্নভাবে কাজের কোনো ফল আসে না। সম্প্রদায়ের লোকদেরকে এলাকার প্রতি আন্তরিক হতে হবে, নিজেদের সংহত রেখে পর্যটকদের কথা মাথায় রেখে বাণিজ্যিক এবং সামাজিক মান সচেতন হতে হবে। এই বানিজ্যিক ও সামাজিক মান তাদের জীবিকার জন্য জরুরী। জরুরী ইতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরী করার জন্যও। পর্যটন এলাকার সমস্ত সম্পদ তারা ঐক্যবদ্ধভাবে রক্ষণাবেক্ষন এর দায়িত্ব পালন করবে।

পর্যটকদের জন্য বাসস্থান, পানীয় খাদ্য ও পরিবহন সুবিধা, আন্তজাতিক দর্শকদের জন্য স্থানীয় সক্ষমতা অনুযায়ী মান সম্পন্ন হতে হবে।
সহজ গ্রামীণ বাসস্থান, স্থানীয় লোকদের খাদ্যাভ্যাস, স্থানীয় উপাদান থেকে প্রাপ্ত অন্যান্য সুযোগ সুবিধা যতটা সম্ভব ভালো আশা করা যায়। ততটাই হওয়া চাই।যেমন সেখানে থাকা উচিত এই পাঁচটি প্রয়োজনীয় সুবিধা:
*বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা থাকতে হবে।
* ভালো পয়নিস্কাশন ব্যবস্থা থাকা জরুরী
* নিরাপদ ও পরিষ্কার খাদ্য বাসস্থান থাকতে হবে।
* ন্যূনতম চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা, অন্তত একটি ছোট হাসপাতাল।
* যোগাযোগের জন্য ফোন সম্ভব হলে ইন্টারনেটের ব্যবস্থা

16066604380_0d68976d1a_z

এটা ছাড়া আরো পাঁচটি জিনিস পর্যটনকে প্রমোট করার জন্য কমুউনিটিতে থাকা দরকার। এটা কমুউনিটির সব লোক অথবা তাদের সহযোগী সংস্থা মিলে প্রতিষ্ঠা করবে। আর যদি প্রতিষ্ঠিত থাকে তাহলে সেটাকে উপস্থাপন উপযোগী ও পর্যটক বান্ধব করে গড়ে তুলতে হবে।
• এখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ দর্শনীয় ও পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
• এখানকার নিজস্ব সংস্কৃতিতে তুলে ধরার ও সংস্কৃতির সাথে পর্যটকদের পরিচিত করার সহজ ব্যবস্থা থাকবে।
• এখানকার নানা উৎসব আয়োজনকে পর্যটকদের জন্য মুক্ত ও নিরাপদ করতে হবে। যদি নাও থাকে তাহলে পর্যটন মৌসুমের সাথে মিলিয়ে নতুনভাবে উৎসব আয়োজন করতে হবে।
• সাংস্কৃতিক আয়োজনে পর্যটকদের প্রয়োজনী সেবা ও সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।
• কমুউনিটির আচরন ও শিষ্টাচার মান সামাজিক ও বানিজ্যিক মানে উন্নীত হতে হবে।

Published : সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ | 1292 Views

  • img1

  • সেপ্টেম্বর ২০১৬
    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
    « আগষ্ট   অক্টোবর »
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • Helpline

    +880 1709962798